শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২

আমার মোবাইল ঘরের দুয়ার সবসময় খোলা : আফতাব

হোসাইন ইমরান, আনোয়ারা

প্রকাশিত: ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২২ শুক্রবার, ০৯:৩৯ পিএম

আমার মোবাইল ঘরের দুয়ার সবসময় খোলা : আফতাব

১৯৫৭ সালে চাতরী ইউনিয়নের প্রথম চেয়ারম্যান ছিলেন প্রয়াত মৌলভী ফজলুল করিম চৌধুরী। তারপরই আবদুর শুক্কুর। ৮৪’-তে এসে জনগণের ভোটে নির্বাচিত হন শামসুদ্দিন চৌধুরী। পরের বার আবারও নির্বাচিত হন তিনি। পরের নির্বাচনে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন এয়াকুব আলী। ৯৭  থেকে ২০০৩ পর্যন্ত টানা ১০ বছর ছিলেন শামসুদ্দিন চৌধুরী। এরপর নির্বাচিত হন এয়াকুব আলী এবং ২০১১ সালে পর পর দুইবার নির্বাচিত হয়ে টানা ১০ বছর দায়িত্ব পালন করেন ইয়াছিন হিরু।

উপজেলার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রে হলেও চাতরী ইউনিয়নে সেই অর্থে উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি। প্রায় ৬৫ বছরেও চাতরীর সাধারণ মানুষ পাইনি ইউনিয়ন পরিষদের স্থায়ী ভবন। । ৬ষ্ঠ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় জয়ী চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন চৌধুরী সোহেল শপথ গ্রহণের পর শুক্রবার (১৮ ফ্রেব্রুয়ারী)ইউপি সদস্য ও সাধারণ জনগণকে নিয়ে আনুষ্ঠানিক প্রথম সভা করেন। এ যেন দীর্ঘ দুই দশক পর পিতার চেয়ারে পুত্রের আসীন হওয়া।

নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন চৌধুরী সোহেলের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি শামসুদ্দিন আহমদ চৌধুরী, বিশেষ অতিথি ছিলেন সাবেক চেয়ারম্যান এয়াকুব আলী চৌধুরী, চট্টগ্রাম সিটি কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক ভিপি আবুল মনছুর মুহাম্মদ মাঈনুদ্দিন, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি নুরুচ্ছফা মেম্বার, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি নাজিম উদ্দিন, সিংহরা রামকানাই উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি আনন্দ মোহন চৌধুরী। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইউপি সদস্য আবদুল মান্নান আজাদ, বাবু নিতাই চন্দ্র দে, বাবু বিকাশ দত্ত, রাশেদ নেওয়াজ ছুট্টো, এস.এম তারেক, আবুল মনসুর, বাবু সঞ্জয় দাশ ভোলা, জিয়াউদ্দিন, শামসুল আলম, নিলুফার করিব নিলুসহ গ্রাম পুলিশের সদস্যরা।

চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন চৌধুরী সোহেল বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এখন বিশ্বের দরবারের উন্নত দেশে পরিনত হয়েছে। দেশের এমন কোনো ইউনিয়ন নেই যেখানে উন্নয়ন হয়নি। স্বাধীনতার স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। আমাদের রাজনৈতিক অভিভাবক ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এমপির নেতৃত্বে চলমান উন্নয়ন কর্মকান্ডকে বাস্তবায়ন করাই আমাদের দায়িত্ব।  অবহেলিত চাতরী হবে দেশের সেরা একটি মডেল ইউনিয়ন হিসেবে। বেকার যুবকদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা, স্বাস্থ্যসেবা, তারুণ্যের জন্য নতুনত্ব নিয়ে কাজ করা, শিক্ষা বিস্তার ও বাল্য বিবাহ বন্ধে কাজ করে যাব।

তিনি আরও বলেন, ক্ষমতা দেখাতে আসিনি, জনগণের সেবা করার জন্যই এসেছি। আমার ইউনিয়নের মানুষের জন্য আমার দুয়ার সবসময় খোলা। আমার মোবাইল নম্বর রাখুন। সবার জন্য সবসময় খোলা থাকবে। জরুরি দরকার হলে মেম্বারদের কাছে যাবে। তারা সমাধান করতে না পারলে আমার কাছে আসবেন। আমরা সবাই এক পরিবার। ভাই ভাই হিসাবে সবসময় পাশে থাকতে চাই।   আমার ইউনিয়নে কোনো মাদক কারবারি, সন্ত্রাস, দুর্নীতিবাজ ও চাঁদাবাজদের স্থান হবে না। আমার পরিষদের কেউ যদি অপরাধে জড়িয়ে গেলে কোন ছাড় পাবে না।