সোমবার, ১৩ জুলাই ২০২০

সৌদি আরবের বাইরের কেউ হজে যেতে পারছে না

প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

প্রকাশিত: ২৪ জুন ২০২০ বুধবার, ০৮:০৪ এএম

সৌদি আরবের বাইরের কেউ হজে যেতে পারছে না

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে সৌদি আরবের নাগরিক এবং দেশটিতে অবস্থানরত বিদেশিদের নিয়ে সীমিত পরিসরে পবিত্র হজ পালনের ঘোষণা দেয়া হয়েছে। দেশটির হজবিষয়ক মন্ত্রী মোহাম্মদ বেনতেন এ ঘোষণা দিয়ে বলেন, মাত্র এক হাজারের মতো মানুষ এবারের হজে অংশ নিতে পারবেন।

মঙ্গলবার সৌদির এই মন্ত্রী সংবাদ সম্মেলনে বলেন, এ বছর বিদেশ থেকে হজযাত্রীদের আগমন নিষিদ্ধ করা হবে। এছাড়া হজে কারা অংশ নিতে পারবেন সে ব্যাপারে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি প্রয়োগ করা হবে।
করোনাভাইরাস মহামারির কারণে সৌদি আরবের নাগরিক এবং দেশটিতে অবস্থানরত বিদেশিদের নিয়ে সীমিত পরিসরে পবিত্র হজ পালনের ঘোষণা দেয়া হয়েছে। দেশটির হজবিষয়ক মন্ত্রী মোহাম্মদ বেনতেন এ ঘোষণা দিয়ে বলেন, মাত্র এক হাজারের মতো মানুষ এবারের হজে অংশ নিতে পারবেন।

মঙ্গলবার সৌদির এই মন্ত্রী সংবাদ সম্মেলনে বলেন, এ বছর বিদেশ থেকে হজযাত্রীদের আগমন নিষিদ্ধ করা হবে। এছাড়া হজে কারা অংশ নিতে পারবেন সে ব্যাপারে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি প্রয়োগ করা হবে।
এই দুঃসময়ে সৌদিপ্রবাসী অর্ধলক্ষাধিক বাংলাদেশি আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। ক্ষতি হবে বাংলাদেশ বিমানের। তারা এবার হজের যাত্রী বহন করে ১০০ কোটির টাকার বেশি লাভের আশা করছিল। কিন্তু সে আশাও গেছে।

মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা বলেন, হজ নিবন্ধনের জন্য যাঁরা টাকা জমা দিয়েছেন, তাঁদের টাকা ফেরত দেওয়া হবে, নাকি আগামী বছরের জন্য রাখা হবে, তা সভায় আলোচনা করে ঠিক করা হবে। সভার সিদ্ধান্ত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে জানানো হবে। কারণ, ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আবদুল্লাহর আকস্মিক মৃত্যুর পর প্রধানমন্ত্রী ধর্ম মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে আছেন। তাঁর অনুমতি নিয়ে সিদ্ধান্ত বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হবে।

হজ এজেন্সিজ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এম শাহাদত হোসাইন তসলিম বলেন, হজে যাওয়ার জন্য নিবন্ধনকারীদের টাকা সরকারের নিয়ন্ত্রণে ব্যাংকে জমা আছে। হজ এজেন্সির কাছে কোনো টাকা নেই। সুতরাং দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই। তিনি বলেন, কেউ যেতে না চাইলে টাকা ফেরত নেওয়া যাবে। তবে টাকা ফেরত নেওয়ার পর তাঁর নিবন্ধন বাতিল হয়ে যাবে। ফলে তিনি পরের বছরের জন্য নতুন করে নিবন্ধনের যোগ্যতা হারাবেন।

গত সোমবার সৌদি আরবের হজ মন্ত্রণালয় ঘোষণা দিয়েছে, সৌদি আরবে বর্তমানে যাঁরা বসবাস করছেন, তাঁদের মধ্যে খুবই সীমিতসংখ্যক মুসল্লি এবারের পবিত্র হজে অংশ নিতে পারবেন। করোনাভাইরাস মহামারির হুমকির পরিপ্রেক্ষিতে সারা বিশ্বের মানুষের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় সৌদি সরকার এই সিদ্ধান্ত নেয়। সৌদি আরবের ধর্মীয় নেতাদের ফোরাম দ্য কাউন্সিল অব সিনিয়র স্কলার হাজিদের সংখ্যা সীমিত রাখার এই সিদ্ধান্তে সমর্থন দিয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম।

এই সিদ্ধান্তের ফলে বাংলাদেশসহ বাইরের দেশের মুসল্লিরা এবার সৌদি আরবে গিয়ে পবিত্র হজ পালন করতে পারবেন না। বিশ্বব্যাপী মহামারি পরিস্থিতিতে এবারের পবিত্র হজব্রত পালন নিয়ে নিবন্ধিত হজযাত্রীরা উৎকণ্ঠা ও সংশয়ের মধ্যে ছিলেন। এর মধ্যেই ঘোষণাটি এল।

ধর্ম মন্ত্রণালয় ও হজ এজেন্সিজ সূত্রে জানা গেছে, নির্ধারিত কোটা অনুযায়ী সরকারি ও বেসরকারি মিলিয়ে এবার বাংলাদেশ থেকে ১ লাখ ৩৭ হাজার মুসল্লির হজে যাওয়ার সুযোগ ছিল। কিন্তু এবার ৬৪ হাজার ৫৯৪ জন হজে যেতে আগ্রহী ছিলেন।