রোববার, ৩১ মে ২০২০

হাসপাতাল ছেড়েছেন এস আলমের আরেক ভাই

প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

প্রকাশিত: ২৩ মে ২০২০ শনিবার, ১২:৫৯ পিএম

হাসপাতাল ছেড়েছেন এস আলমের আরেক ভাই

হাসপাতাল ছেড়েছেন এস আলম গ্রুপের চেয়ারম্যান সাইফুল আলম মাসুদের আরেক ভাই রাশেদুল আলম (৬০)।তিনি দেশের অন্যতম শিল্প পরিবার এস আলম গ্রুপের পরিচালক (প্রশাসন)।

করোনা আক্রান্ত রাশেদুল আলমের শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের আইসিউতে অক্সিজেন দেওয়া হয়। শুক্রবার তার অক্সিজেন লেভেলের উন্নতি হলে আইসিইউ থেকে ওয়ার্ডে স্থানান্তর করা হয়। পরে তিনি বাসায় চলে যান। সেখানে আইসোলেশনে থেকে তিনি চিকিৎসা নিচ্ছেন।

চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের সিনিয়র কনসালটেন্ট আবদুর রব মাসুম সারাবেলাকে জানান, রাশেদুল আলমকে ৩ লিটার অক্সিজেন দেওয়া হয়েছে। এরপর অবস্থা কিছুটা স্বাভাবিক হয়। বর্তমানে এস আলম পরিবারের কেউ হাসপাতালে ভর্তি নেই বলে জানান তিনি।

শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টায় চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের আইসিউতে মারা গেছেন এস আলমের বড় ভাই মোরশেদুল আলম (৬২)। তিনিও করোনা পজেচিভ ছিলেন। তাঁর  হার্টের  রিং পড়ানো ছিল। রাতেই তার লাশ পটিয়া গ্রামের বাড়িতে বাবার কবরের পাশে সমাহিত করা হয়েছে।

হাসপাতালের একটি সূত্র জানায়, রাশেদুল আলমের শ্বাস-প্রশ্বাস ও অন্যান্য শাররিক অবস্থার উন্নতি হলেও তিনি পুরোপুরি শংকামুক্ত নন। উন্নত চিকিৎসায় তাকে ঢাকা নেয়া হতে পারে। রাশেদুল আলমের শারীরিক অবস্থার উন্নতি হওয়ায় এবং অন্য কোন আইসিইউ বেড খালি না থাকায় তাকে সরিয়ে সেখানে বড় ভাই মোরশেদুল আলমকে জায়গা করে দেওয়া হযেছিল। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি।

পরিবারের মেজ সদস্য ও এস আলম গ্রুপের চেয়ারম্যান সাইফুল আলম মাসুদ বর্তমানে পরিবারসহ সিঙ্গাপুরে অবস্থান করছেন। গত ১৭ মে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের ল্যাবের পরীক্ষায় সাইফুল আলম মাসুদের ৫ ভাইসহ পরিবারের ৬ সদস্যের করোনা ধরা পড়ে। এর মধ্যে বড় ভাই মোরশেদুল আলম মারা গেছেন। অন্যরা হলেন, এস আলম গ্রুপের পরিচালক রাশেদুল আলম, এস আলম গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান আবদুস সামাদ লাবু, ইউনিয়ন ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও এস আলম গ্রুপের পরিচালক মোহাম্মদ শহীদুল আলম এবং এস আলম গ্রুপের পরিচালক ওসমান গণি। এছাড়া করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ওই পরিবারের ৩৬ বছর বয়সী এক নারীও।

পরিবারের অন্য সদস্যরা বর্তমানে  চট্টগ্রাম নগরীর সুগন্ধা আবাসিক এলাকার এক নম্বর সড়কে নিজ বাসভবনেই চিকিৎসা নিচ্ছেন। ওই ভবনটি লকডাউন রয়েছে।