রোববার, ৩১ মে ২০২০

চট্টগ্রামে বাস্কেটের আরেক কর্মীর নমুনা পরীক্ষা, রিপোর্ট নেগেটিভ

প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

প্রকাশিত: ০৮ এপ্রিল ২০২০ বুধবার, ০৬:১৫ পিএম

চট্টগ্রামে বাস্কেটের আরেক কর্মীর নমুনা পরীক্ষা, রিপোর্ট নেগেটিভ

চট্টগ্রামে করোনা ভাইরাস সনাক্ত হওয়াদের মধ্যে একজন কাজ করতেন নগরীর খুলশি এলাকার দ্য বাস্কেট সুপারশপে। সবশেষ ২৫ মার্চ তিনি এখানে ডিউটি করেন। বর্তমানে পুরো সুপারশপটি লকডাউন অবস্থায় রয়েছে। কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন এর মালিকসহ ৭৪ কর্মী।

পাশাপাশি কাজ করার কারণে দ্য বাস্কেটের অন্য কারো মধ্যে এই ভাইরাস সংক্রমিত হয়েছে কিনা সে প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছিল। এ অবস্থায় আক্রান্ত যুবকের সবচেয়ে কাছাকাছি কাজ করা বাস্কেটের আরেক কর্মীর নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য সীতাকুন্ডের বিশেষায়িত হাসপাতাল বিআইটিআইডিতে পাঠানো হয়। বুধবার (৮এপ্রিল) তার রিপোর্ট চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ে আসে।

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের একটি সূত্র জানায়, নমুনা পরীক্ষায় ওই যুবকের রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। অর্থাৎ তার দেহে করোনা ভাইরাস সংক্রমিত হয নি।

সুপার স্টোর দ্য বাস্কেটের পরিচালনা সংস্থা এনডিআর সুপার স্টোরের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজমুল হোসাইন বলেন, দেশে করোনা রোগ সনাক্তের পর পরই দ্য বাস্কেটে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও নানাভাবে ক্রেতাদের জীবাণুমুক্ত করে ভেতরে ঢুকানো হতো। কর্মীদের জন্য গ্লাভস ব্যবহার সবসময় বাধ্যতামূলক ছিল। তাদের আক্রান্ত কর্মী দ্রুত সেরে উঠবেন বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

চট্টগ্রামে গত ৩ এপ্রিল প্রথম করোনা রোগী সনাক্ত হয়। তার বয়স ৬৭ বছর। এর ২ দিন পর তার ২৫ বছর বযসী ছেলের নমুনায়ও করোনা ধরা পড়ে। বাবা ও ছেলে দুজনই বর্তমানে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন বিভাগে ভর্তি আছেন।

জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক অসীম কুমার নাথ সারাবেলাকে জানান, দুজনের শারীরিক অবস্থা ভালো আছে। বর্তমানে ছেলের তেমন কোন উপসর্গ নেই। দু‘কদিনের মধ্যে তার দ্বিতীয় দফা নমুনার রিপোর্ট পাওয়া যাবে।

যোগাযোগ করা হলে আক্রান্ত ওই যুবক জানান, তার শরীরে কয়েকদিন সামান্য একটু তাপমাত্রা অনুভব করেছেন। সামান্য কফও ছিল। বর্তমানে অনেক ভালো আছেন।