মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯

খালেদার স্বাস্থ্য নিয়েও বিএনপি রাজনীতি করছে

প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

প্রকাশিত: ০৫ অক্টোবর ২০১৯ শনিবার, ০৫:১০ পিএম

খালেদার স্বাস্থ্য নিয়েও বিএনপি রাজনীতি করছে

খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে, কারাগারে থাকা নিয়েও বিএনপি রাজনীতি করছে বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। তিনি বলেন দলের চেয়ারপার্সনকে নিয়ে বিএনপি আসলে কী করতে চায সেটা বোধগম্য নয়। তারা একেক সময় একেক কথা বলছে।

শনিবার দুপুরে নগরের ফিনলে স্কয়ারে সিনেপ্লেক্স ‘সিলভার স্ক্রিন’ আয়োজিত ‘বাংলাদেশের চলচ্চিত্র শিল্প এবং বিশ্বায়নের চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।
তথ্যমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়া দুর্নীতির দায়ে শাস্তিপ্রাপ্ত একজন আসামি। এতিমের জন্য, এতিমখানা নির্মাণের জন্য যে টাকা এসেছিল- এতিমখানা নির্মাণ না করে তিনি সেই টাকা নিজের ব্যাংক হিসাবে সরিয়ে ফেলেছেন। সমস্ত সাক্ষ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে, দলিল দস্তাবেজ, সওয়াল-জওয়াবের মাধ্যমে তার শাস্তি হয়েছে।

তিনি বলেন, দুর্নীতির মামলায় কেউ জামিন চাইলে রাষ্ট্রপক্ষের কাজ হচ্ছে জামিনের বিরোধিতা করা। জামিনের যদি বিরোধীতা করা না হয় তাহলে সেখানে তো দুর্নীতির সাথে রাষ্ট্রের আপোস করা হয়। রাষ্ট্রের দায়িত্ব হচ্ছে, দুর্নীতির দায়ে একজন সাজাপ্রাপ্ত আসামি যখন জামিন চাইবেন, তখন তার বিরোধিতা করা। এটা রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী বা দুদকের আইনজীবীর দায়িত্ব।

আওয়ামী লীগের অন্যতম মুখপাত্র ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপির পক্ষ থেকে যে দাবি বা আবদার করা হচ্ছে, সেটি হচ্ছে দুর্নীতির সাথে রাষ্ট্র যেন আপোস করে। এটি করা তো সম্ভবপর নয়। বিএনপি একবার এই কথা বলছে, আবার তারা বলছে, আইনী প্রক্রিয়ার মাধ্যমে মুক্ত করবেন।
তিনি বলেন, রাষ্ট্রপক্ষ জামিনের বিরোধিতা করলেও আদালত নানা বিবেচনায় যে কোনো সিদ্ধান্ত দিতে পারে। সেটি হচ্ছে আদালতের এখতিয়ার। এখন বিএনপি একেক সময় একেক কথা বলে। তাদের নেতারা একেক সময় একেক কথা বলেন। তারা আসলে কী চান? তারা খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে, কারাগারে থাকা নিয়ে রাজনীতি করতে চান, নাকি খালেদা জিয়াকে সত্যিকার অর্থে আইনী প্রক্রিয়ায় মুক্ত করতে চান।

‘একবার বলে আইনী প্রক্রিয়ার মাধ্যমে মুক্ত করা হবে, কোনো করুণা তারা চায় না। আবার বলে রাষ্ট্রপক্ষ যেন বিরোধিতা না করে। আবার বলে আন্দোলনের মাধ্যমে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা হবে। আমি বলবো, খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়টি একেবারেই আদালতের এখতিয়ার। জামিনের বিরোধিতা না করে তাদের আবদার পূরণের কোন সুযোগ নেই।’ বলেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।