বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯

রমজানে চাঁদাবাজি হলে ওসি দায়ী

প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

প্রকাশিত: ০১ মে ২০১৯ বুধবার, ১০:৪০ এএম

রমজানে চাঁদাবাজি হলে ওসি দায়ী

‘আমি দৃঢ়ভাবে বলতে চাই, মার্কেটে কোনো চাঁদাবাজি হবে না। কোথাও চাঁদাবাজি হলে অফিসার ইনচার্জদের এর দায়-দায়িত্ব নিতে হবে। চাঁদাবাজি হলে তাৎক্ষণিক আমাদের মৌখিক বা ফোনে অভিযোগ জানাবেন। অভিযোগ পেলে আমরা ব্যবস্থা নেবো।’

মঙ্গলবার নগরীর দামপাড়া পুলিশ লাইন্সে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) কমিশনার কার্যালয়ের কনফারেন্স হলে রমজান উপলক্ষে ব্যবসায়ী, পরিবহন মালিক ও শ্রমিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা শেষে ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন সিএমপি কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান।

এসময় তিনি নগরীর ১৬ থানার ওসিকে হুঁশিয়ার করে দিয়ে বলেন, ‘মার্কেটে চাঁদাবাজি হলে দায় নিতে হবে থানার ওসিদের।’

ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে পুলিশ কমিশনার বলেন, ‘আপনাদের দৃঢ়ভাবে বলতে চাই, কোনো মার্কেটে চাঁদাবাজি হবে না। চাঁদাবাজি হলে দায়-দায়িত্ব নিতে হবে ওসিদের। চাঁদাবাজি হলে তাৎড়্গণিক মৌখিক বা ফোনে অভিযোগ জানাবেন, লিখিত অভিযোগ জানাতে হবে না। ব্যবস্থা নেব।’

হকারদের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে সিএমপি কমিশনার বলেন, ‘ঢাকায় হকার নিয়ন্ত্রণ করেছে সরকার। চট্টগ্রামেও চাইলে অসম্ভব কিছু না। কঠোর হতে চাই না। ফুটপাত ছেড়ে আপনারা কেউ রাসত্মায় আসবেন না। রাসত্মা দোকান করার জায়গা না। রাসত্মা পরিবহনের জন্য।’

নিউমার্কেট কেন্দ্রিক কোনো হকার যাতে সড়কে না বসে সেদিকে লক্ষ্য রাখতে কোতোয়ালী থানার ওসিসহ সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেন সিএমপি কমিশনার।

ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে পুলিশ কমিশনার বলেন, ‘নিজেদের নিরাপত্তা আগে নিজেদেরকেই নিশ্চিত করতে হবে। আপনি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে সিসিটিভি ক্যামেরা রাখবেন না, স্বেচ্ছাসেবক রাখবেন না, অপরাধ হলে পুলিশ আসামি ধরবে-এমন ভাববেন, তা এ যুগে চলবে না। মার্কেটের সামনে যানজট লেগে গেলে ট্রাফিক পুলিশকে দোষ দেবেন তা হবে না।’

গার্মেন্টস শ্রমিকদের বেতন-বোনাস যথাসময়ে দিয়ে দেয়ার জন্য মালিকদের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে সিএমপি কমিশনার বলেন, ‘শ্রমিকরা সড়কে নামলে শৃঙ্খলা ফেরাতে সময় লেগে যায়।’

মতবিনিময় সভায় সিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার আমেনা বেগম, উপ-কমিশনার হারুনুর রশিদ হাযারীসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপসি’ত ছিলেন।