সোমবার, ২৭ মে ২০১৯

সাত মিনিটেই চ্যাম্পিয়ন কলিমুল্লাহ

রবিউল হোসেন, চট্টগ্রাম

প্রকাশিত: ২৮ এপ্রিল ২০১৯ রবিবার, ০৯:৫৮ এএম

সাত মিনিটেই চ্যাম্পিয়ন কলিমুল্লাহ

পটিয়ার ঐতিহ্যবাহী আমজু মিয়ার ১১৫ তম বলী খেলার আসরে চ্যাম্পিয়ান হয়েছে কক্সবাজারের টেকনাফে কলিল্লাহ বলী। টেকনাফের আরেক বলী রাশেদকে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়ন হন তিনি।

এবারসহ আমজু মিয়ার বলী খেলায় মোট চার বার চ্যাম্পিয়ান হলেন কলিমুল্লাহ। রাশেদকে হারাতে প্রায় সাত মিনিট সময় লেগেছে তার। চ্যাম্পিয়ান হয়েই তিনি  বলী খেলা থেকে অবসরের ঘোষণা দেন।

শনিবার বিকেলে পটিয়া পৌরসদরের ৬নং ওয়ার্ড পরীরদিঘী পাড় এলাকায় আমজু মিয়ার বলী খেলা উপলক্ষ্যে বসে লোকজ মেলা। বলী খেলা দেখতে পটিয়াসহ দক্ষিণ চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকা থেকে লোকজন এসে ভীড় করতে দেখা গেছে।

শেষে বলী খেলা আয়োজক কমিটির চেয়ারম্যান আনোয়ারুল আলমের সভাপতিত্বে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় সংসদের হুইপ ও পটিয়া আসনের সংসদ সদস্য সামশুল হক চৌধুরী। আয়োজক কমিটির সমন্বয়ক শাহজাহান চৌধুরীর সঞ্চালনায় এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন পটিয়া উপজেলার নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী, দক্ষিণ জেলা যুবলীগ সভাপতি আমম টিপু সুলতান চৌধুরী, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ নেতা বিজন চক্রবর্তী, পৌরসভা আওয়ামী লীগ সেক্রেটারী আলমগীর আলম, জিতেন গুহ, মিজানুর রহমান, নাজিম উদ্দীন পারভেজ, নুরে আলম সিদ্দিকী প্রমুখ। বিজয়ীদের মোবাইল এবং নগদ অর্থ প্রদান করা হয়।

আয়োজকরা জানিয়েছে, ব্রিটিশ আমল থেকে আমজু মিয়া বলী খেলাটি পৌরসদরের ৬নং ওয়ার্ড পরির দিঘী পাড়ের বলী খেলা হিসেবে স্বীকৃত ছিল। কালের পরিবর্তনে পৌরসদরের পরির দিঘী পাড়ের বলী খেলা নাম বদলে আমজু মিয়ার বলী খেলা করা হয়। এ থেকে পৌরসদরের পরির দিঘী পাড়ে প্রতি বছর ১৪ই বৈশাখ বলী খেলা ও বৈশাখী মেলা অনুষ্ঠিত হয়। এতে চট্টগ্রামের বিভিন্ন উপজেলা থেকে বলীরা খেলতে আসেন। এবারো প্রায় অর্ধ শতাধিক বলী অংশ নিয়েছে।

ধারাবাহিক ভাবে খেলার পর নুর মোহাম্মদ ও রাশেদ প্রথম সেমিফাইনাল ও কলিমুল্লাহ ও আবদুন নুর দ্বিতীয় সেমিফাইনালে মুখোমুখি হয়। নুর মোহাম্মদকে হারিয়ে রাশেদ এবং আবদুন নুরকে হারিয়ে কলিমুল্লাহ ফাইনালে উঠে যায়। শেষ পর্যন্ত ফাইনালে সাত মিনিট খেলে রাশেদ কে হারিয়ে চতুর্থ বারের মতো চ্যাম্পিয়ান হয় কলিমুল্লাহ বলী।