বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯

কর্ণফুলীতে ঐতিহ্যবাহী সাম্পান বাইচ

রবিউল হোসেন, চট্টগ্রাম

প্রকাশিত: ১৫ এপ্রিল ২০১৯ সোমবার, ০৯:১১ পিএম

কর্ণফুলীতে ঐতিহ্যবাহী সাম্পান বাইচ

এক সময় বৈশাখের অপেক্ষায় থাকত কর্ণফুলীর দুই তীরের মানুষ। সব আগ্রহের কেন্দ্রে ছিল নৌকা বাইচ। কালের পরিক্রমায় হারিয়ে যাচ্ছিল ঐতিহ্যের সেই নৌকা বাইচ। এখন শুধু ঐতিহ্য রক্ষা নয়, চট্টগ্রামের প্রাণ কর্ণফুলীকে বাঁচানোর লড়াইয়েও নামতে হয়েছে সাধারণ মানুষকে। কর্ণফুলীকে দখলমুক্ত-দুষনমুক্ত রাখতে পরিবেশবাদী সংগঠনগুলো ধারাবাহিক ভাবে পালন করে আসছিল নানা কর্মসূচী।

কর্ণফুলীকে বাঁচাতে বিগত এক যুগ ধরে কর্ণফুলী নদীর দক্ষিণ তীরে স্থানীয়ভাবে আয়োজন করা হয় সাম্পান বাইচ। এতে স্থানীয় কয়েক ডজন সাম্পান সমিতি অংশ নেয়।

বর্ষবরণকে ঘিরে এবার কর্ণফুলী নদীর দক্ষিণ পাড় শিকলবাহা অংশে সোমবার বিকেল ৪টায় সাম্পান বাইচের আয়োজন করে কর্ণফুলী সোসাইটি নামের সামাজিক সংগঠন। এতে কয়েকজন ডজন সাম্পান সমিতি অংশ নিয়ে তাহের আহমদ মাঝির দল প্রথম, হারুনন মাঝির দল দ্বিতীয় ও কাশেম মাঝির দল তৃতীয় স্থান অধিকার করে। নদীর উত্তর পাড় থেকে সাম্পান বাইচ শুরু হয়ে দক্ষিণ পাড়ে যেতে আট মিনিট সময়ের প্রয়োজন হয়। এদিকে সাম্পান বাইচ প্রতিযোগিতা দেখতে কর্ণফুলী নদীর দুই তীরে হাজারো মানুষের ঢল নামে।

সাম্পান বাইচ শেষে শিকলবাহা ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কর্ণফুলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ শামসুল তাবরীজ। প্রধান বক্তা ছিলেন সিএমপির কর্ণফুলী জোনের সহকারী কমিশনার জাহেদুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন কর্ণফুলী থানার ওসি আলমগীর মাহমুদ।

বক্তব্য রাখেন কর্ণফুলী উপজেলা যুবলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মহিউদ্দীন মুরাদ, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক আমজাদ হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল মান্নান প্রমুখ। পুরস্কার বিতরন অনুষ্ঠান শেষে টিভি ও বেতার শিল্পীদের অংশগ্রহনে চলে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

আগের দিন রোববার পহেলা বৈশাখ উপলক্ষ্যে কর্ণফুলী নদীর দক্ষিণ পাড়ে বসে লোকজ মেলা। সেখানে শিশুদের চিত্রাংকন, নৃত্য, একক গান, অভিনয় অনুষ্ঠিত হয়।