বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০১৯

পটিয়ায় ধর্ষণের শিকার তরুণী হাসপাতালে নিবিড় পর্যবেক্ষণে

প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

প্রকাশিত: ১৫ এপ্রিল ২০১৯ সোমবার, ০৮:৩২ এএম

পটিয়ায় ধর্ষণের শিকার তরুণী হাসপাতালে নিবিড় পর্যবেক্ষণে

পটিয়ায় বৈশাখী মেলায় বেড়াতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার সেই তরুণীর শারীরিক অবস্থার তেমন উন্নতি হয় নি। বর্তমানে তিনি চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৩৩ নং ওয়ার্ডে ভর্তি আছেন। তাকে হাসপাতালে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে বলে জানান কর্ব্যরত চিকিৎসক।

চমেক হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির নায়েক আমির হোসেন জানান, হাসপাতালের ৩৩নং ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ধর্ষণের শিকার তরুণী। তার শরীর থেকে অতিরিক্ত রক্তক্ষরন হয়েছে। তরুণীকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। অবস্থা আশংকামুক্ত নন বলে চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে জানান তিনি। 

কর্তব্যরত এক চিকিৎসক জানান, অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণে তার অবস্থা এখনো আশংকাজনক। রাতে কয়েক ব্যাগ রক্ত দেওয়া হয়েছে।

পটিয়া থানার ওসি (তদন্ত) হেলাল উদ্দীন ফারুকী বলেন, জড়িতদের গ্রেপ্তারী পুলিশী অভিযান অব্যাহত আছে।

পটিয়া হাসপাতালের জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. বাবলু দাশ জানান, ধারণা করা হচ্ছে দুই থেকে তিনজন মিলে ওই কিশোরীকে ধর্ষণের ফলে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়। রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় পটিয়া সরকারি মেডিকেল হাসপাতালে নিয়ে এলে অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে তাকে দ্রুত চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

রোববার পটিয়ায় বৈশাখী মেলায় বেড়াতে গিয়ে প্রতারক প্রেমিকের হাতে ধর্ষনের শিকার হয় ওই তরুণী।

তার বাড়ি উপজেলার বড়লিয়া ইউনিয়নে। পৌরসদরের বিসিক শিল্পনগরীতে গার্মেন্টসে চাকরি করতো। রোববার প্রতারক প্রেমিকের কথায় পটিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে বেড়াতে যায়। মেলা থেকে ফেরার পথে সিএনজি যোগে তরুণীকে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায় প্রেমিক। সেখানে ধর্ষনের শিকার মেয়েটিকে অসুস্থ অবস্থায় স্থানীয়রা বিকের ৫টার দিকে উদ্ধার করে পটিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে।  এ সময় তার মারাত্মক রক্তক্ষরণ হচ্ছিল।