বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯

চট্টগ্রামে সাড়ে ৮শ’ কোটি টাকার অ্যাপোলো হাসপাতাল

ইমরান এমি, অতিথি প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১০ এপ্রিল ২০১৯ বুধবার, ০৯:০৪ এএম

চট্টগ্রামে সাড়ে ৮শ’ কোটি টাকার অ্যাপোলো হাসপাতাল

চট্টগ্রাম নগরীতে চালু হতে যাচ্ছে সাড়ে ৮শ’ কোটি টাকার অ্যাপোলো হাসপাতাল। নগরীর অক্সিজেন সিডিএ অনন্যা আবাসিক এলাকায় প্রায় দেড় একর জায়গায় নির্মাণাধীন ১৮তলা এই হাসপাতাল ভবনের মূল কাজ শেষ। এখন চলছে ফিনিশিং কাজ। আগামী ৬ মাসের মধ্যে পুরো কাজ শেষ হওয়ার পর হাসপাতালের চিকিৎসা কার্যক্রম শুরু হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট।

বিশ্বমানের চিকিৎসা সেবায় ভারত-সহ বিভিন্ন দেশে রয়েছে অ্যাপোলো হাসপাতালের কার্যক্রম। বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় অনেক আগেই চালু হয়েছে অ্যাপোলো হাসপাতাল। সেই ধারাবাহিকতায় চট্টগ্রামেও উন্নত চিকিৎসা সেবা দেওয়ার লক্ষ্যে চালু হতে যাচ্ছে আন্তর্জাতিক মানের এই হাসপাতালটি।

এ হাসপাতাল চালু হলে চট্টগ্রামের তিন জেলাসহ কক্সবাজার, বান্দরবান, ফেনী, নোয়াখালী, খাগড়াছড়ি, রাঙামাটিসহ আশপাশের জেলার মানুষকে উন্নত চিকিৎসা সেবার জন্য রাজধানী ঢাকায় যেতে হবে না।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, নির্মাণাধীন অ্যাপোলো হাসপাতাল চট্টগ্রামের ১৮তলা ভবনের নির্মাণ কাজ প্রায় শেষ হয়েছে। এখন চলছে ভবনের ফিনিশিং দেওয়া আর বিদ্যুৎ ব্যবস্থা স্থাপনের কাজ। সুবিশাল পরিসরে সাজানো হয়েছে ভবনটি। এছাড়াও সীমানা দেওয়াল, প্রতিটি ফ্লোরে চলছে পলেস্তরা দিয়ে আধুনিকতার ছোঁয়া লাগানোর কাজ করছে শ্রমিকরা। ভবনের কাজ শেষ হওয়ার পর চালু করা হবে আধুনিকমানের লিফট সার্ভিস ও এসি বসানোর কাজ। ভবনের সম্পূর্ণ কাজ শেষ করতে সময় লাগবে আরো মাস ছয়েকের মতো।  চলতি বছরের শেষের দিকে হাসপাতালে চিকিৎসা কার্যক্রম শুরু করা সম্ভব হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

জানা যায়, ২০১৪ সালের ১২ আগস্ট প্রায় ৮৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে অক্সিজেন-কুয়াইশ সংযোগ সড়কের চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপড়্গ সিডিএ অনন্যা আবাসিক এলাকায় ৩৫০ শয্যার এই হাসপাতাল নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করে অ্যাপোলো হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। চট্টগ্রামের স্বাস্থ্য সেবার উন্নয়নে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের কাছে এ্যাপোলো হাসপাতাল ঢাকার মতো চট্টগ্রামেও একটি হাসপাতাল করতে আগ্রহ প্রকাশ করে কর্তৃপক্ষ। এমন আগ্রহে সিডিএ সায় দিয়ে প্রায় দেড় একর জায়গা দেয় হাসপাতাল নির্মাণের জন্য। ঢাকায় প্রায় সাড়ে তিনশ কোটি টাকা ব্যয়ে ৪৫০ বেডের হাসপাতাল করার পর চট্টগ্রামে সাড়ে তিনশ বেডের হাসপাতাল নির্মাণ কাজ শুরু করে।

এ বিষয়ে সহকারী প্রজেক্ট ম্যানেজার টিপলু বড়ুয়া বলেন, আমাদের ভবন নির্মাণের প্রায় কাজ শেষ হয়েছে। এখন ফিনিশিংয়ের কাজ চলছে। এছাড়াও মেকানিক্যালি যে কাজ রয়েছে তা শুরু হয়েছে। আমরা আশাবাদী এবছরের শেষের দিকে হাসপাতালের কার্যক্রম চলবে। তার জন্য আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

জানতে চাইলে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের অধ্যক্ষ সেলিম মো. জাহাঙ্গীর বলেন, উন্নত চিকিৎসা সেবার জন্য আমাদের এই অঞ্চলের মানুষকে ঢাকা যেতে হতো বা অনেক সময় জটিল রোগ হলে দেশের বাইরে গিয়ে চিকিৎসা করতে হয়। এটি চালু হলে ঢাকা বা দেশের বাইরে যেতে হবে না, চট্টগ্রামেই উন্নত সেবা পাওয়া যাবে। তার মাধ্যমে দেশের টাকা যেমনি বাইরে যাবে না ঠিক তেমনি ভোগানিত্মতে পড়তে হবে না রোগীদের। আমি মনে করি অ্যাপোলো হাসপাতাল যেহেতু ভারতেও আছে, এখন চট্টগ্রামেও হচ্ছে। এর মাধ্যমে সেখানে নার্স, ডাক্তারসহ কর্মসংস্থান হবে অনেক পাশাপাশি চিকিৎসা খাতের অনেক কিছু শেয়ারিং করবে, যার মাধ্যমে চট্টগ্রামের চিকিৎসকরা উপকৃত হবেন।