সোমবার, ২৭ মে ২০১৯

ফ্লাইওভারের নিচের রাস্তার দায়িত্বে সিটি কর্পোরেশন

প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

প্রকাশিত: ১৪ মার্চ ২০১৯ বৃহস্পতিবার, ০৯:০৪ এএম

ফ্লাইওভারের নিচের রাস্তার দায়িত্বে সিটি কর্পোরেশন

চট্টগ্রাম নগরীর বহদ্দারহাট ফ্লাইওভার থেকে লালখান বাজার এবং ২ নং গেট থেকে বেবী সুপার মার্কেট পর্যন্ত প্রায় ৪.৭০ কিলোমিটার রাস্তা, ড্রেইন ও ফুটপাত মেরামত ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনকে চিঠি দিয়েছে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ)। তবে ফ্লাইওভার ও ফ্লাইওভারের নিচে ডিভাইডারে সৌন্দর্য্যবর্ধন কাজ সিডিএ নিজে দেখাশুনো করবে। এ প্রসঙ্গে  বুধবার চসিককে চিঠি দিয়েছে সিডিএ।

এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের (লালখান বাজার থেকে বিমানবন্দর) কাজ থাকার পরও তা এখনিই কেন সিটি কর্পোরেশনকে হস্তান্তর করা হলো, জানতে চাইলে সিডিএ’র নির্বাহি প্রকৌশলী মাহফুজুর রহমান বলেন, ‘এই রোডটি সিডিএ’র আওতায় থাকার পরও সিটি কর্পোরেশন ওয়াসাকে তা কাটার অনুমোদন দেয়। তাই এ বিষয়ে মেয়র মহোদয়ের সাথে আলাপ করে রোডটি সিটি কর্পোরেশনকে হস্তান্তর করা হয়েছে।’

সিডিএ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম স্বাক্ষরিত চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, সিডিএ কর্তৃক বাস্তবায়িত মুরাদপুর, ষোলশহর দুই নম্বর গেইট ও জিইসি জংশন ফ্লাইওভার নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় বহদ্দারহাট ফ্লাইওভার থেকে লালখান বাজার পর্যন্ত এবং ষোলশহর দুই নম্বর গেইট থেকে বেবি সুপার মার্কেট বায়েজিদ বোস্তামী রোডের উভয়পাশে রাস্তার কার্পেটিং কাজ, ড্রেইন ও ফুটপাত নির্মাণ সম্পন্ন করেছে। বর্তমানে বহদ্দারহাট ফ্লাইওভার থেকে লালখান বাজার পর্যন্ত চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন হতে রাস্তা কর্তনের অনুমোদন নিয়ে চট্টগ্রাম ওয়াসার ঠিকাদার রাস্তা কর্তন করছে। এতে সিডিএ কর্তৃক শেষ করা সম্পূর্ণ নতুন রাস্তা ড়্গতিগ্রসত্ম হচ্ছে। তাই সিডিএ অর্ডিন্যান্সের ৪০-সি ধারা অনুযায়ী বহদ্দারহাট থেকে লালখান বাজার পর্যন্ত এবং ষোলশহর দুই নম্বর গেইট থেকে বেবি সুপার মার্কেট পর্যনত্ম ৪ দশমিক ৭০ কিলোমিটার রাস্তা, ড্রেইন ও ফুটপাত মেরামত ও রড়্গণাবেড়্গণের উদ্দেশ্যে বুঝে নেয়ার জন্য বলা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত কয়েক বছর আগে সিডিএ এভিনিউ রোডের সিএন্ডবি কলোনির সামনে থেকে ষোলশহর রেলওয়ে স্টেশন পর্যনত্ম রোডটির অবস’া খুব খারাপ ছিল। কিন’ সিডিএ’র আওতায় থাকার পরও সিডিএ এই রোডের মেরামত করেনি। এর কারণ হিসেবে তারা দেখিয়েছিল, তাদের আওতায় থাকা রোডটি কাটিংয়ের অনুমোদন সিটি কর্পোরেশন দিয়েছিল ওয়াসাকে, তাই তা মেরামতও করবে সিটি কর্পোরেশন। এনিয়ে দুই সংস’ার মধ্যে অনেক চিঠি আদান প্রদানও হয়।

এবার বর্ষার আগে কাটা রাস্তা সিটি কর্পোরেশনকে হস্তান্তর করায় সেটি কে মেরামত করবে তা নিয়ে আর ঠেলাঠেলি হবে না। এবার সিটি কর্পোরেশনকে মেরামত করতে হবে। ইতিমধ্যে ওয়াসা ষোলশহর ও মুরাদপুর এলাকায় রাস্তা কেটে পাইপ বসানোর কাজ করছে।

এদিকে রাস্তা বুঝিয়ে নেয়া প্রসঙ্গে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘আমরা তাদের চিঠি পেয়েছি। এখন যৌথ সার্ভে দল মাঠে কাজ করে নকশাসহ তা বুঝে নিবো।’ উল্লেখ্য, বিধি অনুযায়ী সিডিএ প্রকল্প শেষ করার পর সিটি কর্পোরেশনকে রাস্তা বুঝিয়ে দেয়ার কথা।

আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভারের প্রকল্প পরিচালক মাহফুজুর রহমান বলেন, ফ্লাইওভারের বহদ্দারহাট থেকে লালখান বাজার পর্যন্ত এবং ২ নং গেট থেকে বেবী সুপার মার্কেট পর্যন্ত রাস্তাগুলোর কাজ সম্পূর্ণ শেষ করেছে সিডিএ। চসিক থেকে রাস্তা কাটার অনুমতি নিয়ে চট্টগ্রাম ওয়াসা ফ্লাইওভারের নিচে অনেকগুলো রাস্তা কেটেছে। এতে সম্পূর্ণ নতুন রাস্তাগুলো ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। তাই এসব রাস্তা মেরামত ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য চসিককে বলা হয়েছে।