শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮

বিশ্বকাপে সেরাদের সেরা

ক্রীড়া ডেস্ক :

প্রকাশিত: ১৬ জুলাই ২০১৮ সোমবার, ১২:২২ এএম

বিশ্বকাপে সেরাদের সেরা

গোল্ডেন বল জিতেছেন লুকা মডরিচ। যেভাবে পুরো টুর্নামেন্ট খেলেছেন, টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার তাঁর প্রাপ্য। তবে ফাইনালে উঠে হেরে গিয়েও এই পুরস্কার জেতা অনেকটা সান্ত্বনা পুরস্কারের মতো মনে হয়। গতবার যে অনুভূতি হয়েছিল লিওনেল মেসির। এবার হলো আরেক এলএম টেন-এর। লুকা মডরিচ যে চ্যাম্পিয়নস লিগের স্বীকৃতিগুলোই দিয়ে দিতে চেয়েছিলেন এক বিশ্বকাপ জেতার জন্য।

সোনার জুতো, বিশ্বকাপের সবচেয়ে বেশি গোলদাতাকে দেওয়া হয় এই সোনার জুতো। সোনার জুতো যেন একপ্রকার স্বীকৃতি, বিশ্বের সেরা ফরোয়ার্ড এখন ইংল্যান্ডের হ্যারি কেইন। কিন্তু এই রেকর্ডে যেন অনেকেই খুশি নন! এই সোনার জুতো জয় নাকি সবচেয়ে অকর্মা সোনার জুতো জয়।

তা যা-ই হোক, গ্যারি লিনেকারের পর আরেক ইংলিশ খেলোয়াড়ের হাতে এই সম্মান উঠল। অবশ্য কেইন এখনো আক্ষরিক অর্থে হাতে নিতে পারেননি। সেমিফাইনালে বিদায়ের পর দেশে ফিরে গেছেন। তবে কেইনের করা ৬ গোল কেউ টপকাতে পারেনি আজ। যে দুজন পারতেন, সেই এমবাপ্পে-গ্রিজমান দুজনই গোল করেছেন। তবে একটি করে। অন্তত হ্যাটট্রিক করতে হতো। তা না হওয়াতে নিশ্চিত হয়ে গেছে কেইনই জিতছেন গোল্ডেন বুট।

গোল্ডেন বল
লুকা মদ্রিচ, ক্রোয়েশিয়া


এ নিয়ে ছয়টি বিশ্বকাপেই গোল্ডেন বল জিতলেন এমন কেউ, যারা জিততে পারেননি বিশ্বকাপ। গতবার নিরস বদনে সোনার গোলকটা হাতে তুলেছিলেন লিওনেল মেসি, রাশিয়ায় সেটা করতে হলো লুকা মদ্রিচকে। টুর্নামেন্ট জুড়েই ক্রোয়েশিয়াকে টেনেছেন, সব আলো কেড়ে নিয়েছিলেন। ফাইনালে একরাশ হতাশা সঙ্গী হলো তার, তবে টুর্নামেন্টের সেরা ফুটবলার তিনিই।

গোল্ডেন বুট
হ্যারি কেইন, ইংল্যান্ড
ফাইনালে আসা হয়নি, জিততে পারেননি তৃতীয় স্থানের সান্ত্বনাসূচক ব্রোঞ্জ মেডেলটাও। তবে এক গোল করার পর পিটার ড্রুরি যেমন বলেছিলেন, ‘হিজ বুটস ইজ গোল্ডেন’! শেষ পর্যন্ত সত্যি হলো সেটাই, ছয় গোল করে রাশিয়া বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ গোলদাতা ইংলিশ অধিনায়কই।

গোল্ডেন গ্লাভস
থিবো কোর্তোয়া, বেলজিয়াম
কোয়ার্টার ফাইনালে ব্রাজিলের বিপক্ষে পারফরম্যান্সটাই যথেষ্ট, তার হাতজোড়ার মূল্য বুঝাতে। সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নিলেও কোর্তোয়া হয়েছেন বিশ্বকাপের সেরা গোলরক্ষক, জিতেছেন গোল্ডেন গ্লাভস।

সেরা উদীয়মান ফুটবলার
কিলিয়ান এমবাপ্পে, ফ্রান্স
ফাইনালে পেলের পর প্রথম টিন-এজার হিসেবে গোল করলেন, পুরো টুর্নামেন্টেই আলাদা করে নিজেকে চিনিয়েছেন ফ্রান্সের ভবিষ্যত। কিলিয়ান এমবাপ্পে- রিমেমবার দ্য নেম! এ নিয়ে টানা দুইবার বিশ্বকাপে সেরা উদীয়মান খেলোয়াড় হলেন ফ্রান্সের কেউ। গতবার এ পুরষ্কার জিতেছিলেন এই ফাইনালে গোল করা এমবাপ্পের সতীর্থ- পল পগবা।