ঢাকা, শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

আর্জেন্টিনা দলে বিদ্রোহ !

ক্রীড়া ডেস্ক :

প্রকাশিত: ২৪ জুন ২০১৮ রবিবার, ১০:৪০ পিএম

আর্জেন্টিনা দলে বিদ্রোহ !

বিশ্বকাপের ফেভারিটের তালিকা থেকে এক লাফে এত বদ অধঃপতন! গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায়ের শঙ্কা। আর্জেন্টিনা নিজেদের প্রথম ম্যাচে আইসল্যান্ডের বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র করে শুরুতেই ধাক্কা খায়। দ্বিতীয় ম্যাচে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে সেরকম কিছু হলেও হয়তো মান বাঁচত দলটির।

কিন্তু অকল্পনীয় ৩-০ ব্যবধানে হেরে এখন বিপর্যস্ত দলটি। এমন পরিস্থিতিতে দলটিতে বিদ্রোহ দেখা দিয়েছে বলে জানাচ্ছে আর্জেন্টাইন সংবাদমাধ্যম।
ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে এই হারের দায় নিজের ঘাড়ে নিয়েছিলেন আর্জেন্টাইন কোচ হোর্হে সাম্পাওলি। কিন্তু এরই মধ্যে খবর সাম্পাওলির বিপক্ষে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন সিনিয়র খেলোয়াড়রা। নাইজেরিয়ার বিপক্ষে তার অধীনে খেলতে চান না লিওনেল মেসিরা।

পরিস্থিতি এমন খারাপ হয়েছে যে, খেলোয়াড়দের দাবির মুখে নাইজেরিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে কোচের দায়িত্ব পালনে সম্মত হয়েছেন টিম ম্যানেজার হোর্হে বুরুচাগা। এসব তথ্য জানিয়েছে টিওয়াইসি স্পোর্টস।

তবে সর্বশেষ খবর হচ্ছে, কিছুটা নমনীয় হয়েছে টিম আর্জেন্টিনা। এতে ধারণা করা হচ্ছে, নাইজেরিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে সাম্পাওলিই কোচ হিসেবে থাকবেন ডাগআউটে।

কোচের সিদ্ধান্ত নিয়ে খেলোয়াড়দের মনে অসন্তোষ তুষের আগুনের মতো জ্বলছে বিশ্বকাপের শুরু থেকেই। ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে ৩-০ গোলে হারের পর সেই আগুন রূপ নেয় অগ্ন্যুৎপাতে। ইএসপিএনের কলম্বিয়ান ক্রীড়া সংবাদকর্মী আন্দ্রেস মারোক্কো জানিয়েছিলেন, নাইজেরিয়ার মুখোমুখি হওয়ার আগেই সাম্পাওলির অপসারণ চান খেলোয়াড়েরা। তাঁর স্থলে আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের (এএফএ) জেনারেল ম্যানেজার ও ’৮৬ বিশ্বকাপ তারকা হোর্হে বুরুচাগাকে চান মেসি-আগুয়েরোরা।

তাঁদের এই ইচ্ছা অবশ্য আলোর মুখ দেখেনি। আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন এ দাবি মানেনি। তারা সাম্পাওলিকেই বহাল রেখেছে। তবে আর্জেন্টিনার সংবাদমাধ্যম টিওয়াইসি স্পোর্টস জানিয়েছে নতুন খবর, ক্রোয়েশিয়ার কাছে হারের পর থেকেই খেলোয়াড়েরা সাম্পাওলির কোনো নির্দেশের তোয়াক্কা করছেন না! অর্থাৎ সাম্পাওলির এখন শুধুই ‘কাগুজে’ কোচ। সিদ্ধান্ত যা নেওয়ার খেলোয়াড়েরাই নিচ্ছেন। তবে নির্দিষ্ট কোনো খেলোয়াড়ের নাম প্রকাশ করেনি এই সংবাদমাধ্যম। খুব স্বাভাবিকভাবেই দলের সিনিয়র খেলোয়াড়দের এই বিদ্রোহে বেশি ভূমিকা থাকার কথা।

আর্জেন্টিনার সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে হারের পর গভীর রাতে খেলোয়াড়েরা তাঁদের বেস ক্যাম্পে বৈঠকে বসেন। সেখানে সাম্পাওলিকে তাঁরা বলেন, নাইজেরিয়ার বিপক্ষে গ্রুপপর্বের শেষ ম্যাচে তিনি যেন কোচিং না করেন। মানে, সাম্পাওলি এই ম্যাচে কোনো নির্দেশ খাটাতে পারবেন না। ট্যাকটিস কিংবা একাদশও বাছাই করতে পারবেন না।

টিওয়াইসি স্পোর্টসের জানানো আরেকটি বিস্ফোরক তথ্য হলো, সাম্পাওলিকে না মানার এই বিদ্রোহে খেলোয়াড়দের সমর্থন দিচ্ছেন স্বয়ং এএফএ সভাপতি ক্লদিও তাপিয়া। অন্যান্য সংবাদমাধ্যমে অবশ্য দাবি করা হয়েছে, খেলোয়াড়, কোচিং স্টাফ ও তাপিয়া মিলে বৈঠক শেষে ঐক্যবদ্ধ হয়ে নাইজেরিয়ার বিপক্ষে ম্যাচের পরিস্থিতি মোকাবিলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

এদিকে ১৯৮৬ বিশ্বকাপজয়ী আর্জেন্টিনার সাবেক ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার রিকার্ডো গিউস্তির দাবি, তিনি বুরুচাগার সঙ্গে কথা বলেছেন। বুরুচাগা তাঁকে বলেছেন, নাইজেরিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ নিয়ে খেলোয়াড়েরা তাঁর সঙ্গে কথা বলেছেন। গিউস্তির ভাষ্য, ‘খেলোয়াড়েরাই একাদশ ঠিক করবেন। এটাই বাস্তবতা। সাম্পাওলি চাইলে বেঞ্চে বসে থাকতে পারেন। তা না চাইলেও সমস্যা নেই।’

সংবাদমাধ্যমের খবর, আর্জেন্টিনা স্কোয়াডকে চাঙা করে তুলতে সবচেয়ে বেশি ভূমিকা রাখছেন লিওনেল মেসি ও হাভিয়ের মাচেরানো। অবশ্য এ ছাড়া আর পথও নেই। আইসল্যান্ডের বিপক্ষে ড্র এবং ক্রোয়েশিয়ার কাছে হারে মেসিদের দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে। শেষ ষোলোয় উঠতে হলে নাইজেরিয়ার বিপক্ষে আর্জেন্টিনাকে জিততেই হবে। পাশাপাশি তাঁদের প্রার্থনায় থাকতে হবে আইসল্যান্ড যেন ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে জিততে না পারে। এই কঠিন সমীকরণের মধ্যে দলে বিদ্রোহের খবর নিশ্চিতভাবেই সমর্থকদের আরও দুশ্চিন্তায় ফেলে দেবে।

এবারের বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচেই ধাক্কা খেয়েছিল আর্জেন্টিনা। নবাগত আইসল্যান্ডের কাছে ১-১ গোলের ড্র দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করে দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। ওই ম্যাচে পেনাল্টি শ্যুট মিস করে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন মেসি। পরের ম্যাচে ক্রোয়েশিয়ার কাছে ৩-০ গোলে হেরে এখন নক আউট পর্বে ওঠাই কষ্টকর হয়ে পড়েছে। পরবর্তী ম্যাচে নাইজেরিয়ার বিপক্ষে জিতলেও নক আউট পর্ব নিশ্চিত হবে না তাদের। সে জন্য তাকিয়ে থাকতে হবে আইসল্যান্ডের পরবর্তী ম্যাচের ওপর।