শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

পাকিস্তানের ‘অবাস্তব কল্পনা’

ক্রীড়া প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ০৫ জুলাই ২০১৯ শুক্রবার, ১১:১০ এএম

পাকিস্তানের ‘অবাস্তব কল্পনা’

পাকিস্তান দেশটাই এমনই। কখন কী বলে, কী করে, কী হয় তার কোন ঠিক ঠিকানা নেই। এবার বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচ ঘিরেও ঘুরছে পাকিস্তানের অবাস্তব কল্পনা। তারা নাকি বাংলাদেশকে হারাবে ৩১৬ রানে, তাও যে দেশটি কিনা বাংলাদেশের সঙ্গে সর্বশেষ ৪ মাচে হেরেছে।

অঙ্কটা সরল। কিন্তু সহজ নয়। পাকিস্তানকে প্রথমে ব্যাট করে ৪০০ রান তুলতে হবে। তারপর বাংলাদেশকে ৮৪ রানের মধ্যে অলআউট করতে হবে। তবেই জয়ের ব্যবধান দাঁড়াবে ৩১৬, ঠিক যত হলে নিউজিল্যান্ডের বদলে পাকিস্তান চলে যাবে ২০১৯ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে। তবে ওয়ানডে ক্রিকেটের ইতিহাসে এত বড় ব্যবধানে আজ পর্যন্ত কেউ জেতেনি, বিশ্বকাপ তো দূরের কথা।

বলাই বাহুল্য, ৪০০ বা ৮৪, এই অঙ্কগুলো পরস্পরের পরিপ্রেক্ষিতে বদলে যাবে। কিন্তু মোদ্দা কথা হলো, আগামীকাল লর্ডসে অবিশ্বাস্য কিছু একটা না ঘটলে পাকিস্তানের সেমিফাইনালে যাওয়ার আশা দুরস্ত। আর বাংলাদেশ যদি আগে ব্যাট করে, তাহলে তো খেলা শুরু হওয়ার আগেই ছিটকে যাবে পাকিস্তান।

এই বিশ্বকাপে শুরুটা খুব খারাপ হওয়া সত্ত্বেও ঘুরে দাঁড়িয়েছিল পাকিস্তান। এমনকি পরের দিকে তাদের খেলা দেখে অনেকেরই মনে পড়ছিল ১৯৯২ বিশ্বকাপের কথা। শুরুতে বিপর্যস্ত হয়েও ইমরান খানের নেতৃত্বে পাকিস্তান সেবার শুধু ঘুরেই দাঁড়ায়নি, একেবারে চ্যাম্পিয়ন হয়ে তবেই থেমেছিল। কিন্তু ২৭ বছর আগের সেই স্বপ্নের প্রত্যাবর্তন খুব সম্ভবত এবার আর হচ্ছে না সরফরাজ আহমেদের দলের। তবে তারা যে জায়গা থেকে ঘুরে দাঁড়িয়ে সেমিফাইনালের সম্ভাবনা তৈরি করেছে, তা পাকিস্তানের মতো জেদি দলের পক্ষেই সম্ভব।

অন্যদিকে বাংলাদেশ দারুণ চমকে দিয়েছে সবাইকে। অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান তো চমৎকার ধারাবাহিকতা দেখিয়েছেন গোটা টুর্নামেন্টে। সব বিভাগে তাঁর উজ্জ্বল অবদানের সাহায্যে প্রথম সারির দলগুলোর সঙ্গে সমানে সমানে লড়েছে বাংলাদেশ। আফগানিস্তান আর দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে তাদের সহজ জয় ছাড়াও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ৩২১ রান তাড়া করে আট ওভার বাকি থাকতেই জিতে যাওয়া, আর অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের মতো কঠিন প্রতিপক্ষকে টক্কর দেওয়ার গল্প বহু বছর পরেও লোকের মনে থাকবে।

দু`দলেই প্রতিভার ছড়াছড়ি, কিন্তু স্ট্র্যাটেজি, ধারাবাহিকতা আর পেশাদারিত্বে একটু পিছিয়ে থাকায় জন্যই হয়তো সেমিফাইনালে যাওয়া হল না তাদের। কিন্তু শেষ ম্যাচে দারুণ কিছু করে দেখিয়ে আনন্দের স্মৃতি নিয়ে ফিরতে পারবেন তারা?