রোববার, ৩১ মে ২০২০

করোনা পরীক্ষার ৩০ হাজার কিট দিল ভারত

প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

প্রকাশিত: ০৬ মে ২০২০ বুধবার, ০৫:৫৮ পিএম

করোনা পরীক্ষার ৩০ হাজার কিট দিল ভারত

ভারত সরকারের কাছ থেকে করোনা পরীক্ষার ৩০ হাজার কিট পেয়েছে বাংলাদেশ। বুধবার (৬ মে) ভারতীয় হাই কমিশনার  রীভা গাঙ্গুলি দাশ কোভিড-১৯ শনাক্তকরণ কিটগুলো পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড.  এ কে. আবদুল মোমেনকে হস্তান্তর করেন।

গত ২৯ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে ফোনালাপে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বাংলাদেশে কোভিড-১৯ এর বিস্তার নিয়ন্ত্রণে রাখতে এবং স্বাস্থ্য ও অর্থনীতিতে এই মহামারীটির প্রভাব হ্রাস করার ক্ষেত্রে বাংলাদেশকে সহায়তায় ভারতের প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেছিলেন।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে হাই কমিশনার জানান, এই আরটি-পিসিআর শনাক্তকরণ কিটগুলো ভারতের  ‘মাই ল্যাব ডিসকভারি সলিউশন প্রাইভেট লিমিটেড’ দ্বারা উত্পাদিত এবং  কোভিড-১৯ শনাক্তকরণের জন্য ভারতে বহুল ব্যবহৃত।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন মহামারী সংক্রমণের পর তিন দফায় ভারতের সহায়তার প্রশংসা করেন এবং শনাক্তকরণ কিটগুলো বাংলাদেশে করোনা পরীক্ষার সংখ্যা বাড়ানোর এই সময়ে বিশেষ প্রয়োজন বলে মত ব্যক্ত করেন।

প্রয়োজনীয় তাপমাত্রায় সংরক্ষিত অবস্থায় ইন্ডিগোর একটি ফ্লাইটে বাংলাদেশে নিয়ে আসার পর আরটি-পিসিআর পরীক্ষার কিটগুলো রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটে (IEDCR) পাঠানো হয়েছে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ঘোষণায় ভারতের ১০ মিলিয়ন ডলার প্রাথমিক সহায়তা নিয়ে সার্ক কোভিড-১৯ জরুরি তহবিল গঠিত হয়। এই তহবিলের অধীনে ৩০ হাজার সার্জিক্যাল মাস্ক এবং ১৫ হাজার হেড-কভার সমন্বিত জরুরি চিকিৎসা সহায়তার প্রথম চালান ২৫ মার্চ ২০২০ বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ.কে. আবদুল মোমেনকে হস্তান্তর করা হয় এবং ২৬ এপ্রিল ২০২০ এক লাখ হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ট্যাবলেট এবং ৫০ হাজার জীবাণুমুক্ত সার্জিকাল ল্যাটেক্স গ্লাভস সমন্বিত জরুরি চিকিত্সা সরবরাহের দ্বিতীয় চালানটি বাংলাদেশ সরকারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।