শনিবার, ৩০ মে ২০২০

রাসেলদের খবর নিয়েছেন কেউ ?

আলী নুর জেমস, সমাজকর্মী

প্রকাশিত: ০৭ এপ্রিল ২০২০ মঙ্গলবার, ১২:১৭ এএম

রাসেলদের খবর নিয়েছেন কেউ ?

রাসেলের কথা মনে আছে আপনাদের ? আনোয়ারা উপজেলার বন্দর খলিফাপাড়ার মানসিক অপ্রকৃতস্থ সেই রাসেল। কর্নফুলী টানেল সংযোগ সড়কের জমি অধিগ্রহনে যে হারিযেছিল ভিটেবাড়ি। এখন তো আরো দু:সময়। লকডাউনের এ কদিনে রাসেল-রা কী খাচ্ছে না খাচ্ছে কেউ খবর নিযেছেন!

রাসেলকে বন্দর সেন্টারের রাসেল পাগলা নামেই চিনে সবাই। দেখা মাত্রই হাতটা বাড়িয়ে দেয় হ্যান্ডশেক করার জন্য। রোববার সন্ধ্যায় তার বাড়িতে গিয়েছিলাম খোঁজখবর নেওয়ার জন্য। স্বপ্নের আনোয়ারা ফাউন্ডেশন`র পক্ষ থেকে কিছু উপহারস্বরূপ খাদ্যসামগ্রী নিয়ে। কিন্তু রাসেলের সাথে দেখা হয়নি। তার মায়ের হাতে তুলে দিলাম খাদ্য সামগ্রীগুলো।

রাসেল প্রতিদিনের মত গতকালও বাইরে গেছে। হয়তো করোনা সম্পর্কে তার কোনো ধারণা নেই। নয়তো এমন দুর্দিনে কেউ কি ঘর থেকে বেরোয় ? সে  মানসিক রোগী। সবার কাছ থেকে ৫-১০ টাকা নিয়েই তার জীবন চলে । ঘরে তার বৃদ্ধ মা, এক ভাইকে টানাটানির সংসার।

বাপ-দাদার পৈত্রিক ভিটা বাড়ি ছিল একসময়।  কিন্তু সেটাও কেড়ে নিল কর্ণফুলী টানেল সংযোগ সড়ক। এখন কোন রকমে দিনযাপন করছেন পাশের একটি কুঁড়েঘরে। বর্তমান পরিস্থিতিতে রাসেলরা খুব কষ্টে আছে। এতদিন বাজারে ভরপুর মানুষ ছিল। সমস্ত দোকানপাট খোলা ছিল। রাসেলরা সহজেই ৫-১০ টাকা পেয়ে যেত।  রাস্তাঘাটে মানুষ নেই, এখন চাইবে কার কাছে ! এ রকম শত শত রাসেল আজ বড়ই অসহায়।

আপনার আমার আশেপাশে এরকম হাজারো রাসেল রয়েছে। তাই আসুন আশেপাশের এসব অসহায় মানুষ গুলোর খোঁজখবর নিই। তারা কেমন আছে কিভাবে দিন কাটাচ্ছে একটু খবর নিই।   তাদের হাতে তুলে দিই কিছু খাদ্যসামগ্রী। অন্তত দুই মুঠো ভাত যেন ওরা মুখে দিতে পারে।