বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮

চট্টগ্রামে ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশে শ্লোগান শুধু খালেদা-তারেকের

প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

প্রকাশিত: ২৭ অক্টোবর ২০১৮ শনিবার, ০৫:০২ পিএম

চট্টগ্রামে ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশে শ্লোগান শুধু খালেদা-তারেকের

চট্টগ্রামে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের জনসভা পরিণত হয়েছিল বিএনপির জনসভায়। নগরীর কাজির দেউড়িতে নাসিমন ভবন বিএনপি কার্যালয়ের সামনে সমাবেশে খালেদা ও তারেকের নামে শ্লোগানে মুখর ছিল এলাকা।

শনিবার (২৭ অক্টোবর) দুপুর সোয়া ২টা থেকে চট্টগ্রাম বিএনপির মহানগর অফিসের সামনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট আয়োজিত জনসভা শুরু হয়।

জসনভার শুরু থেকেই বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরীর মুক্তির দাবিতে স্লোগান দিতে থাকে জনসভায় উপস্থিত নেতাকর্মীরা।

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেনের সভাপতিত্বে চলা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত আছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রধান সমন্বয়ক ড. কামাল হোসেন, প্রধান বক্তা বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আব্দুল মঈন খান ও ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমানসহ বিএনপির নেতৃবৃন্দ।

বক্তব্যের জন্য জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের কোনো নেতার নাম ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা মুহুর্মুহু স্লোগান দিতে থাকেন। বক্তব্য শুরু হলেও থামছে না স্লোগান। এমতাবস্থায় বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হচ্ছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের।

গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক সুব্রত চৌধুরী ও ডাকসুর সাবেক ভিপি সুলতান মোহাম্মদ মনসুরের বক্তব্যের সময় নেতাকর্মীরা- `খালেদা জিয়া ও তারেকের নামে` স্লোগান দিতে থাকে। তখনও কেউ কথা বলেনি। এরপর মির্জা আব্বাস ও ড. আব্দুল মঈন খানের বক্তব্যের পর নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না নাম ঘোষণার পর পরই মঞ্চের সামনে থেকে মুক্তি মুক্তি মুক্তি চাই, খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই, তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মামলার রায় প্রত্যাহার ও আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরীর মুক্তি চাই ইত্যাদি স্লোগান দিতে থাকে।

স্লোগানের চাপে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি তুলে বক্তব্য শুরু করেন মাহমুদুর রহমান মান্না। এরপরও থামলো না নেতাকর্মীরা। মাহমুদুর রহমান মান্না বক্তব্য থামিয়ে বলে বসলেন, আমরা তো বলছি যে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে...।

এরপর চেয়ার থেকে উঠে দাঁড়ান বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি নেতাকর্মীদের স্লোগান বন্ধের দায়িত্ব নিলেন। সঙ্গে স্থায়ী কমিটির অন্যতম সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। মির্জা ফখরুলের কথায় সাময়িক চুপ থাকেন নেতাকর্মীরা।

কিন্তু মোস্তফা মহসীন মন্টুর বক্তব্যের শুরুতে আবারও স্লোগান দিতে থাকলে রেগে বসলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ। তখন দুই কানে আঙ্গুল দেখিয়ে নেতাকর্মীদের বক্তব্য শোনার পরামর্শ দেন মির্জা ফখরুল।

এভাবে স্লোগানমুখর পরিস্থিতিতে চলছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ব্যানারে বিএনপির নেতাকর্মীদের উপস্থিতিতে সরকারের পদত্যাগ, নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে অবাধ, সুষ্ঠু নির্বাচন ও খালেদা জিয়াসহ সকল রাজবন্দীদের মুক্তি এবং ৭ দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে জনসভা।

এ ছাড়া আরও উপস্থিত আছেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের সভাপতি আ স ম আব্দুর রব, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, গণফোরামের সুব্রত চৌধুরী, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী ও সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদসহ জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ উপস্থিত আছেন।