শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

বান্দরবানে বৌদ্ধ ভিক্ষু হত্যা মামলার ৩ আসামি কারাগারে

বান্দরবান প্রতিনিধি :

প্রকাশিত: ৩১ মে ২০১৭ বুধবার, ১০:৪৮ পিএম

বান্দরবানে বৌদ্ধ ভিক্ষু হত্যা মামলার ৩ আসামি কারাগারে

বান্দরবানের বাইশারীতে বৌদ্ধ ভিক্ষু মংসই উ (৭৮) হত্যা মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে সীতাকুণ্ড ও কুমিল্লা থেকে গ্রেফতার হওয়া ৩ জঙ্গিকে গতকাল সোমবার সকালে আদালতে হাজির করা হয়েছে। আসামিরা হলেন- সীতাকুণ্ড জঙ্গি আস্তানা থেকে গ্রেফতার হওয়া জহিরুল হক, তার স্ত্রী রাজিয়া বেগম এবং কুমিল্লায় জঙ্গি আস্তানা থেকে পালানোর সময় র্যা বের হাতে গ্রেফতার হওয়া মাহমুদুল হাসান।

এদের মধ্যে জহির-রাজিয়া দম্পতির বাড়ি নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারী ইউনিয়নের যৌথখামার পাড়ায় এবং মাহমুদুল হাসানের বাইশারী ইউনিয়নের লম্বাবিল এলাকায়।
সীতাকুণ্ড ও কুমিল্লা থেকে গ্রেফতার হওয়া ৩ জঙ্গিকে গ্রেফতার দেখিয়ে বান্দরবান অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আবু হানিফের আদালতে হাজির করা হয়। আদালত অভিযোগ আমলে নিয়ে গ্রেফতার জঙ্গিদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এছাড়াও মামলায় হ্লামং চাক এবং মিয়ানমারের রোহিঙ্গা নাগরিক জিয়া উদ্দিন ও রহিম নামে আরো তিনজনকে ২০১৬ সালে গ্রেফতার করা হয়।

জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শম্পা রানী সাহা জানান, বাইশারীতে বৌদ্ধ ভিক্ষু হত্যা মামলায়
গ্রেফতার হওয়া ৩ জঙ্গির সম্পৃক্ততার প্রমাণ পাওয়ায় তাদের তিনজনকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। গ্রেফতার তিন জঙ্গিকে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হলে আদালত তাদের জেল হাজতে পাঠানো নির্দেশন দেন।

গ্রেফতার জঙ্গিদের গত রোববার চট্টগ্রাম কারাগার থেকে বান্দরবান জেল হাজতে আনা হয়েছিল। সেখান থেকে সোমবার সকালে জঙ্গিদের বৌদ্ধভিক্ষু হত্যা মামলায় বান্দরবান জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হয়।

গত বছরের ১৪ মে জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারী ইউনিয়নের উত্তর চাকপাড়া বৌদ্ধবিহারের প্রধান ভিক্ষু মংসই উকে (৭৮) গলা কেটে হত্যা করা হয়। প্রায় দু’বছর আগে বিহার প্রতিষ্ঠার পর থেকেই প্রধান ভিক্ষু হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন মংসই উ। এ ঘটনায় ভিক্ষুর ছেলে চিংসাউ চাক নাইক্ষ্যংছড়ি থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।