মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯

চকবাজারের `বস` টিনু অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার

প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

প্রকাশিত: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ সোমবার, ০৮:৩৪ এএম

চকবাজারের `বস` টিনু অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার

চট্টগ্রামের সাবেক ছাত্রলীগ নেতা নুর মোস্তফা টিনুকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন (র‌্যাব)। রোববার রাত পৌনে ১২টার দিকে তাকে নগরীর কাপাসগোলা এলাকা থেকে আটক করা হয়। আটকের পর তাকে নিয়ে তার বাসা ও আশপাশের এলাকায় অস্ত্র উদ্ধারে অভিযান চালায় র‌্যাবের একাধিক টিম।

চাঁদাবাজি, সন্ত্রাস, আধিপত্য বিস্তারসহ নানা অভিযোগে অভিযুক্ত আলোচিত-সমালোচিত এই নেতা অনেকের কাছে `চকবাজারের বস` হিসাবে পরিচিত। এক সময় ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতির দায়িত্বে থাকা টিনু হালে নিজেকে যুবলীগ নেতা হিসাবে পরিচয় দিত। চট্টগ্রাম কলেজ ও মহসিন কলেজ শিবিরের দখলমুক্ত করতে তার গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা ছিল বলে মনে করেন অনেকে। আবার এই দুই কলেজে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দফায় দফায় সংঘর্ষের নেপথ্যেও তার নাম রয়েছে।

র‌্যাব তাকে কিশোর গ্যাং এর গডফাদার হিসাবে পরিচয় দিয়েছে। 

রোববার (২২ সেপ্টেম্বর) রাত ১১ টার দিকে টিনুকে নগরীর চকবাজার থানার কাপাসগোলা এলাকা থেকে আটক করা হয়। এরপর ওই এলাকায় তার বাসা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ঘিরে তল্লাশি চালাচ্ছে র‌্যাব।

র‌্যাব-৭ এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মাশকুর রহমান বলেন, অস্ত্র আছে এমন তথ্যের ভিত্তিতে টিনুকে গ্রেফতারের পর তার বাসা ও অফিসে তল্লাসি চালানো হয়েছে। র‌্যাবের একটি সূত্র টিনুর কাছে একটি পিস্তল পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে।

নগরীর চকবাজারসহ আশপাশের এলাকার আতঙ্ক যুবলীগ নেতা পরিচয়দানকারী নূর মোস্তফা ওরফে টিনু চাঁদাবাজি, ছিনতাই, দখলবাজিসহ নানা অপরাধ নিয়ন্ত্রণ ও বাণিজ্য কর্মকাণ্ডে জড়িত বলে অভিযোগ রয়েছে। এছাড়া টিনুর অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের জন্য ছাত্রলীগ-যুবলীগের নেতারাও বিব্রত।

এর আগে চট্টগ্রাম কলেজ, সরকারি হাজি মুহাম্মদ মহসিন কলেজকে নিজের নিয়ন্ত্রণে নিতে টিনু গ্রুপের সাথে কয়েক দফায় কলেজ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ হয়। অভিযোগ রয়েছে, চকবাজার এলাকা ঘিরে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এমনকি ফুটপাতের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী, ট্যাক্সি-টেম্পু স্ট্যান্ড থেকেও চাঁদাবাজি করেন এই টিনু। চার ভাই ও পাঁচবোনের মধ্যে টিনু হচ্ছেন দ্বিতীয়।  টিনুর বড় ভাই মোহাম্মদ সেলিম জামায়াতের রুকন পর্যায়ের একজন নেতা। আর ছোট ভাই নুরুল আলম শিপু ছাত্রদল নেতা। ফলে বিএনপি কিংবা আওয়ামী লীগ যারাই ক্ষমতাই আসুক, তিনি সব সময় নিরাপদ থাকেন।

তবে নুর মোস্তফা টিনু এক সময় নগরীর নগরীর চকবাজার ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি ছিলেন। বর্তমানে নিজেকে যুবলীগ নেতা পরিচয় দিলেও  সাংগঠনিক কোনো কর্মসূচিতে এ পর্যন্ত তাকে দেখা যায়নি। এছাড়া তিনি নিজেকে  চট্টগ্রামের সাবেক এক মন্ত্রীর অনুসারী হিসেবে পরিচয় দিতেন।

কোতোয়ালী থানা সূত্রে জানা গেছে, ২০০৩ সালের মাঝামাঝি সময়ে গোলপাহাড় মোড় থেকে একটি অত্যাধুনিক চায়নিজ একে-২২ রাইফেল ও ১টি ম্যাগজিনসহ টিনুকে গ্রেপ্তার করেছিল নগর গোয়েন্দা পুলিশ। এছাড়া ২০১২ সালে চাঁন্দগাও থানায় তার বিরুদ্ধে বিস্ফোরক আইনে মামলা হয়েছিল।