শনিবার, ২৫ মে ২০১৯

চট্টগ্রামের মেয়র পদে নির্বাচনের আশা হাসিনা মহিউদ্দিনের

প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

প্রকাশিত: ১১ মার্চ ২০১৯ সোমবার, ০৯:০৯ এএম

চট্টগ্রামের মেয়র পদে নির্বাচনের আশা হাসিনা মহিউদ্দিনের চট্টগ্রামে প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরীর বাসায় গিয়ে তাঁর পরিবারের সদস্যদের সমবেদনা জানিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছবিটি সেই সময়ে মহিউদ্দিন চৌধুরীর বাসভবন থেকে তোলা।

চট্টগ্রামের সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী জীবিত থাকাকালীন সময় মহিলা আওয়ামীলীগ নিয়ে রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন তার স্ত্রী হাসিনা মহিউদ্দিন। বর্তমানে তিনি নগর মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি। এবার হাসিনা মহিউদ্দিন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র হওয়ার ইচ্ছা নিয়ে মাঠে নামছেন। নেতা-কর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়িয়ে দিয়েছেন। গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় গিয়ে বঙ্গবন্ধুর মাজার জেয়ারত করে এসেছেন।

চট্টগ্রামে আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে মহিউদ্দিন চৌধুরী বরাবরই অবিসংবাদিত নেতা। মহিউদ্দিন চৌধুরী তার ৭৪ বছরের জীবনে চট্টগ্রামের মেয়র ছিলেন ১৬ বছর। একাত্তরের এই মুক্তিযোদ্ধা মৃত্যু পর্যন্ত ছিলেন চট্টগ্রাম নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি।

২০১৭ সালে ১৫ ডিসেম্বর মহিউদ্দিন চৌধুরীর মৃত্যুর পর প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামীলীগ সভাপতি শেখ হাসিনা যত বার চট্টগ্রাম এসেছেন প্রতিবারই শ্রদ্ধার সঙ্গে মহিউদ্দিনের অবদানকে স্মরণ করেছেন। এমনকি ঢাকা সিটি কপোরেশনের (উত্তর) নতুন মেয়র আতিকুল ইসলাম গত ৭ মার্চ শপথ নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাত করলে সেখানেও তিনি প্রয়াত মহিউদ্দিন চৌধুরীর মতো করে সিটি করপোরেশন পরিচালনা করার নির্দেশনা দেন।

মহিউদ্দিন চৌধুরীর বড় ছেলে মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক, কোতোয়ালী আসনের সংসদ সদস্য , সবশেষে নতুন মন্ত্রীসভায় শিক্ষা উপমন্ত্রীর দায়িত্ব দিয়েছেন।

এবার মহিউদ্দিনের স্ত্রী হাসিনা মহিউদ্দিন মেয়র হওয়ার দৌড়ে নামায় বিষয়টি নিয়ে নানা আলোচনা থাকলেও হাসিনা মহিউদ্দিন বলেছেন, স্বাধীনতার মাসের প্রথম দিবসে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কবরে শ্রদ্ধা নিবেদনের উদ্দেশ্যে নেতৃবৃন্দ ও কর্মীদের নিয়ে তিনি টুঙ্গি পাড়া যাই।  সেখানে গিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর কবরের ধুলিকণা ছুঁয়ে এই মাতৃভূমিকে সেবা দেয়ার অঙ্গীকার করেছি।  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের স্বপ্ন পূরণের বাতিঘর। আগেও একবার নেতৃবৃন্দ ও কর্মীদের নিয়ে টুঙ্গিপাড়ায় গেছেন বলে জানান তিনি। 

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র পদে নির্বাচন করবেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আগ্রহ অবশ্যই আছে। যেকোন রাজনীতিকের ইচ্ছা, আকাংখা থাকে। একজন রাজনীতিক হিসেবে তারও ইচ্ছা আছে। তবে সবকিছু নির্ভর করছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপর। তিনি যদি মনোনয়ন দেন, তবে নির্বাচন করার জন্য সব ধরনের সাংগঠনিক এবং মানসিক প্রস্তুতি তার রয়েছে।

তিনি বলেন, ‘জনগণের সাথে মহিউদ্দিন চৌধুরীর সেই হৃদ্যতা, সম্পৃক্ততা, জনসেবা ধরে রাখতে চাই। আজীবন জনগণের পাশে থাকতে চাই। মহিউদ্দিন চৌধুরীর মৃত্যুর আগেও রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলাম এবং মৃত্যুর পর আরো বেশি সক্রিয় হয়েছি’। প্রতিটি ওয়ার্ডে মহিলা আওয়ামী লীগের কমিটি আছে। প্রতিটি ওয়ার্ড কমিটি সক্রিয় আছে।

তাছাড়া প্রয়াত জননেতা চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সফল মেয়র এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরীর অনুসারীরাও তার সাথে আছেন উল্লেখ করে বলেন, তার সাথে কারো বিরোধ নেই। সবাইকে নিয়ে তিনি চলেন। তাই নেত্রী যদি তাকে আগামী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মনোনয়ন দেন, তাহলে তার বিজয়ী হওয়ার দৃঢ় আত্মবিশ্বাস  আছে। কারণ নগর আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দও তার সাথে আছেন। প্রধানমন্ত্রী ও দলীয় প্রধান শেখ হাসিনা দল এবং চট্টগ্রামবাসীর জন্য যে দায়িত্ব দেবেন তা নিষ্ঠার সাথে পালন করবেন।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের বর্তমান মেয়র আওয়ামীলীগের মহানগর কমিটির বর্তমান সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দিন । তিনি দুই মেয়াদের মেয়র নির্বাচিত হয়ে দায়িত্ব পালন করছেন।  ২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিল চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।  এই হিসাবে আগামী ২০২০ সালে পরবর্তী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।