শনিবার, ২৫ মে ২০১৯

চট্টগ্রামে চার উপজেলায় আওয়ামীলীগে বিদ্রোহী

প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

প্রকাশিত: ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ বুধবার, ০৮:১৮ এএম

চট্টগ্রামে চার উপজেলায় আওয়ামীলীগে বিদ্রোহী

তৃতীয় ধাপে চট্টগ্রামের ৬ উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। বাকী পাঁচ উপজেলার চারটিতে রয়েছে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী। একটিতে আওয়ামীলীগ প্রার্থীর বিরুদ্ধে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে লড়বেন বিএনপি নেত্রী। অন্য কোন প্রার্থী না থাকায় ফুরফুরে মেজাজে আছেন আনোয়ারার চেয়ারম্যান প্রার্থী।

আগামী ২৪ মার্চ তৃতীয় ধাপে আনোয়ারা, বোয়ালখালী , পটিয়া, চন্দনাইশ, বাঁশখালী, লোহাগাড়া নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ছয় উপজেলায় ৬৫ প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। এরমধ্যে চেয়ারম্যান পদে ১৮ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩০ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১৭ জন মনোনয়নপত্র জমা দেন। তারমধ্যে আনোয়ারায় চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান তৌহিদুল হক চৌধুরী। যাচাই-বাছাইয়ে মনোনয়নপত্র বৈধ হলে একক প্রার্থী হিসেবে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ফের চেয়ারম্যান হতে যাচ্ছেন তিনি।

বাঁশখালীতে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হিসেবে নৌকা প্রতীক পেয়েছেন সাবেক সাংসদ সুলতানুল করিব চৌধুরীর ছেলে জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী মো. গালিব। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক খোরশেদ আলম। তিনি গত উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে লড়েছিলেন। উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মৌলভী নূর হোসেন। তিন প্রার্থীই আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত। লোহাগাড়ায় চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন বিএনপি ও জামায়াত ঘরানার প্রার্থী। পটিয়ায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থীর সঙ্গে বিএনপি নেত্রী আফরোজা বেগম ডলি, বোয়ালখালীতে ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিএনপি নেত্রী সাহেদা আকতার শেফু ভাইস চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

বোয়ালখালীতে চেয়ারম্যান পদে ৫ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৬ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩ জন মনোনয়নপত্র জমা দেন। প্রার্থীদের মধ্যে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিএনপি নেত্রী বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহেদা আকতার শেপু মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে একাধিক প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।
চেয়ারম্যান পদে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আ.লীগের দলীয় প্রার্থী নুরুল আলম রাজা, বাংলাদেশ জাসদের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি সৈয়দুল আলম, মহানগর শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম, জেলা আ.লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আবদুল কাদের সুজন, জাতীয় পার্টির উপজেলা সভাপতি দিদারুল আলম ফজু।

ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান ইসলামী ফ্রন্ট মনোনীত প্রার্থী ওবায়দুল হক হক্কানী, উপজেলা আ.লীগের সাবেক যুগ্ম-সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা এস এম সেলিম, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক সদস্য রিদুয়ানুল হক টিপু, যুবলীগের সভাপতি (একাংশ) মো. সেলিম উদ্দিন, চরণদ্বীপ ইউনিয়নের সাবেক মেম্বার মো. নাছির উদ্দিন, সৈয়দ মোহাম্মদ নুরুল কবির।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বিএনপি নেত্রী শাহেদা আকতার শেপু। উপজেলা মহিলা আ.লীগের সভাপতি ও পৌর কাউন্সিলর শামীম আরা বেগম, সহ-সভাপতি সুপর্ণা ভঞ্জ।

বাঁশখালীতে  চেয়ারম্যান পদে ৩ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৮ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

চেয়ারম্যান পদে জমা দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী সাবেক সাংসদ সুলতানুল কবির চৌধুরীর ছেলে চৌধুরী মো. গালীব, জেলা আওয়ামী লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক খোরশেদ আলম ও মৌলভী নূর হোসেন। চৌধুরী মোহাম্মদ গালীব মনোনয়নপত্র জমাদানের সময় উপস্থিত ছিলেন পৌর মেয়র শেখ সেলিমুল হক চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা আবদু রাজ্জাক, চেয়ারম্যান সুলতানুল গণি চৌধুরী, চেয়ারম্যান আ ন ম শাহাদত আলম, এডভোকেট তোফায়েন বিন হোছাইন প্রমুখ।

ভাইস চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আবদুল গফুর, যুবলীগ নেতা মোহাম্মদ সোলাইমান, বখতেয়ার উদ্দিন চৌধুরী (করিম ভান্ডারী), এম মনছুর আলী, শাহাদত রশিদ চৌধুরী, এমরানুল হক ইমরান, আবু ছালেক, এম আলমলীগ কবির চৌধুরী।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রেহেনা আক্তার কাজমী ও জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নুরী মন আক্তার।

লোহাগাড়ায় চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন ৪ জন। তারা হলেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খোরশেদ আলম চৌধুরী। সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান জিয়াউল হক চৌধুরী বাবুল, বিএনপি নেতা এস এম ছলিম উদ্দীন খোকন চৌধুরী ও মাহমুদুল হক পেয়ারু।

ভাইস চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন আরমান বাবু রুমেল, মো. ইব্রাহিম কবির, এম এস মামুন, মিজানুর রহমান মিজান, দীল মুহাম্মদ ও ডা. রতন কান্তি দাশ।
মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে জেসমিন আক্তার, পারভীন আক্তার, জেসমিন আক্তার ও শাহ নেওয়াজ পারভীন সানা মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

পটিয়ায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী ও বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান বিএনপি নেত্রী আফরোজা বেগম জলি মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

ভাইস চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক তিমির বরণ চৌধুরী, বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান ইসলামী ফ্রন্টের পীরজাদা সৈয়দ এয়ার মোহাম্মদ পেয়ারু, সাবেক ছাত্রনেতা মো. শাহাব উদ্দিন ও মাধাই চন্দ্র নাথ।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মাজেদা বেগম শিরু ও ধলঘাট ইউপি সদস্য সুমি দে সাথী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

আনোয়ারায় চেয়ারম্যান পদে বর্তমান চেয়ারম্যান তৌহিদুল হক চৌধুরীই একমাত্র প্রার্থী।

ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান মৃণাল কান্তি ধর, ইসলামী ফ্রন্টের ডিআইএম জাহাঙ্গীর আলম, আওয়ামী লীগের মো. শওকত মনোনয়নপত্র জমা দেন।

মহিলা বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মরিয়ম বেগম ও রওশন আকতার মুন্নী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

চন্দনাইশে চেয়ারম্যান পদে তিনজন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

চেয়ারম্যান পদে জমা দিয়েছেন আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী এ কে এম নাজিম উদ্দীন, বর্তমান চেয়ারম্যান আবদুল জব্বার চৌধুরী ও ইসলামী ফ্রন্টের মাওলানা ফেরদৌসুল আলম।

ভাইস চেয়ারম্যান পদে জমা দিয়েছেন মাওলানা সোলাইমান ফারুকী, মো. আমিনুল ইসলাম চৌধুরী, মো. মঈনুদ্দীন।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে খালেদা আকতার চৌধুরী, সঞ্চিতা বড়ুয়া, কামেলা খানম ও বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়াম্যান শাহনাজ বেগম মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।