রোববার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯

চট্টগ্রামের দুই ট্রেনের সংঘর্ষ ব্রাম্মনবাড়িয়ায়, নিহত ১৫

প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

প্রকাশিত: ১২ নভেম্বর ২০১৯ মঙ্গলবার, ০৮:৪৬ এএম

চট্টগ্রামের দুই ট্রেনের সংঘর্ষ ব্রাম্মনবাড়িয়ায়, নিহত ১৫

চট্টগ্রাম থেকে ঢাকাগামী তূর্ণা নিশীথা ও সিলেট থেকে চট্টগ্রামগামী উদয়ন এক্সপ্রেস নামে দুটি ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষে অন্তত ১৫ জন নিহত হয়েছে। সোমবার দিবাগত রাত (১১ নভেম্বর)  সাড়ে ৩টার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার মন্দবাগ রেলস্টেশনে এই দূর্ঘটনা ঘটে।

এ দুর্ঘটনায় আরও হতাহতের আশঙ্কা করা হচ্ছে। আহতদের মধ্যে অন্তত ৫০ জনের অবস্থা আশংকাজনক বলে জানা গেছে। এর মধ্যে ২৭ জন ব্রাম্মনবাড়িয়া সদর হাসপাতালে ভর্তি আছেন। 

আখাউড়া রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল কান্তি দাস দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মন্দভাগ রেলওয়ে স্টেশনে সিলেট থেকে ছেড়ে আসা চট্টগ্রামগামী আন্তঃনগর উদয়ন এক্সপ্রেস ও চট্টগ্রামগামী আন্তঃনগর তূর্ণা নিশীথা এক্সপ্রেস ট্রেন দুটির মধ্যে সংঘর্ষ হয়। দুটি ট্রেনের কয়েকটি বগি লাইনচ্যুত হয়েছে। উদ্ধার কাজ চলাচ্ছেন ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা।

দুর্ঘটনা কবলিত আন্তঃনগর উদয়ন এক্সপ্রেসে থাকা সিলেট রেলওয়ে থানা পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মো. ইকবাল হোসেন জানান, উদয়ন ট্রেনটি তূর্ণা নিশীথা ট্রেনটিকে সাইড দিচ্ছিল। উদয়নের অর্ধেক বগি অন্য লাইনে ঢোকার পর বাকি বগিগুলোতে তুর্ণা নিশীথা ধাক্কা দিলে দুটি বগি দুমড়ে-মুচড়ে যায়।

এদিকে দুর্ঘটনার পর থেকে ঢাকা-চট্টগ্রাম ও চট্টগ্রাম-সিলেট রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে বলেও জানান তিনি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুই ট্রেনের মধ্যে উদয়নের গতি তুলনামূলক কম ছিল। হতাহতদের বেশিরভাগই উদয়নের যাত্রী বলে জানা গেছে।

দুর্ঘটনা কবলিত আন্তঃনগর উদয়ন এক্সপ্রেস ট্রেনে থাকা সিলেট রেলওয়ে থানা পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মো. ইকবাল হোসেন জানান, উদয়ন ট্রেনটি তুর্ণা নীশিতা ট্রেনটিকে সাইড দিচ্ছিল। উদয়নের অর্ধেক বগি অন্য লাইনে ঢোকার পর বাকি বগিগুলোতে তুর্ণা নীশিতা ধাক্কা দিলে দুটি বগি দুমড়ে-মুচড়ে যায়।