বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯

চট্টগ্রামের ৫০ গ্রামে আগাম কুরবানি

প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

প্রকাশিত: ১১ আগস্ট ২০১৯ রবিবার, ০৯:৩৮ এএম

চট্টগ্রামের ৫০ গ্রামে আগাম কুরবানি ফাইল ফটো

সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের সঙ্গে মিল রেখে চট্টগ্রামের প্রায় অর্ধশত গ্রামে রবিবার আগাম ঈদ উল আজহা পালন করা হচ্ছে।

দক্ষিণ চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার মির্জাখীল দরবারের পূর্বপুরুষের ফতোয়া ও তরিকা অনুযায়ী দীর্ঘ ২০০ বছর ধরে এই দরবারের অনুসারীরা চাঁদ দেখার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ধর্মীয় সকল অনুষ্ঠান-অনুশাসন সারা বিশ্বে একই দিনে পালনের রীতি অনুসরণ করে আসছে। 

এ হিসাবে একদিন আগেই রবিবার দক্ষিণ চট্টগ্রামের অর্ধশত গ্রামে ঈদের জামাত ও পশু কুরবানির আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করেন মির্জাখীল দবারের অনুসারীরা। সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশেও রবিবার ঈদ পালন করা হচ্ছে। বাংলাদেশের সোমবার ঈদ উল আজহা পালিত হবে। 

মির্জাখীল দরবার শরীফের মুখপাত্র এবং সমাজ হিতৈষী সংগঠণ `লাইট টু লাইফ` এর উদ্যোক্তা মোহাম্মদ মছউদুর রহমান জানান,  মির্জাখীল দরবার শরীফের পূর্বপুরুষদের রুইয়াতিল হেলাল বিষয়ক ফতোয়ার ভিত্তিতে দুইশ‘ বছর ধরে সারাবিশ্বে একই দিনে ঈদ পালনের রীতি অনুসরণ করা হয়। এর ধারাবাহিকতায় রবিবার দরবারে ঈদের জামাত অনুষ্ঠাত হয়। সকালে দরবারের বর্তমান পীর মৌলানা মোহাম্মদ আরেফুল হাই (কঃ) এর উপস্থিতিতে তাঁর বড় ছেলে  ডঃ মৌলানা মোহাম্মদ মকছুদূর রহমানের (কঃ) ইমামতিতে দরবারের ঈদগাহে পবিত্র ঈদ উল আযহার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। এতে দূর-দূরান্তের বিভিন্ন উপজেলা থেকে আসা কয়েক হাজার মানুষ শামিল হন।

চট্টগ্রামের যেসব গ্রামে আগাম ঈদ পালন হয় তার মধ্যে আছে- সাতকানিয়ার মির্জাখীল, চরতী, সুইপুরা, গাটিয়া ডেঙ্গা, চন্দনাইশের হারলা, কাঞ্চননগর, বাদামতল, পশ্চিম এলাহাবাদ, বাইনজুরি, কেশুয়া, কানাইমাদারী, সাতবাড়িয়া, দোহাজারি। বাঁশখালীর চাম্বল, কালিপুর, শেখের খীল, ভাদালিয়া, হাছনদণ্ডী, চর বরমা, আলী নগর, পটিয়ার বাহুলী, পারিগ্রাম মোল্লা পাড়া, আলমদার পাড়া, হাইদগাঁও, আনোয়ারার বরুমছড়া, বরকল, তৈলার দ্বীপসহ আরও কিছু গ্রামে আগাম ঈদ উদযাপিত হচ্ছে।

এছাড়া কক্সবাজার জেলার চকরিয়া, টেকনাফ, মহেশখালী, হ্নীলা, কুতুবদিয়া, বান্দরবানের লামা, আলিকদম ও নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বেশকিছু বাসিন্দাও আগাম ঈদ পালন করেন। দেশের বাইরে
তুরষ্ক, জার্মানী, সুইজারল্যান্ড, ফ্রান্স, ভারত, শ্রীলংকাসহ বিশ্বের বিভিন্নস্থানেও  মির্জাখীল দরবার শরীফের অনুসারীরা রবিবার ঈদ উল আযহা পালন করেন।