শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

চকরিয়ায় মেয়েকে বিয়ে না দেওয়ায় মাকে খুন

প্রতিবেদক, কক্সবাজার

প্রকাশিত: ১০ জুলাই ২০১৯ বুধবার, ০৯:১৫ এএম

চকরিয়ায় মেয়েকে বিয়ে না দেওয়ায় মাকে খুন

কক্সবাজারের চকরিয়ায় ঘরে ঢুকে নাজমা বেগম (৪৫) নামের এক নারীকে জবাই করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। সোমবার (৮জুলাই) রাত ৯টার দিকে উপজেলার হারবাং ইউনিয়নের শান্তিনগর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত নাজমা বেগম ওই এলাকার দরিদ্র রিক্সাচালক কলিম উল্লাহর স্ত্রী।

স্থানীয় বাসিন্দাদের বরাত দিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান মিরানুল ইসলাম বলেন, খুন হওয়া নারীর বাসায় ওই সময় কেউ ছিলনা, এ সুবাদে একা পেয়ে ওই নারীকে ঘরে ঢুকে জবাই করেছে দুর্বৃত্তরা।

স্থানীয়রা জানায়, সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে রিকশাচালক মো. কলিম উল্লাহর স্ত্রী নাজমা বেগম রান্নাঘরে কাজ করার সময় একদল দুর্বৃত্ত রান্নাঘরের ভেতরে ঢুকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার গলাকেটে হত্যা করে দ্রুত পালিয়ে যায়।

ঘটনার পরপরই এলাকাবাসি দুর্বৃত্তদের ধাওয়া করেও কাউকে আটক করতে পারেনি। ঘটনাস্থলেই নাজমা বেগমের মৃত্যু হয়।

তারা জানায়, কিছুদিন আগে নাজমা আক্তারের সদ্য এসএসসি পাশ করা এক মেয়েকে কক্সবাজারের মো. হাসান নামের ওই বখাটে যুবক বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছিল। হাসান হারবাং মুসলিম পাড়ায় মো. মোনাফ মিস্ত্রীর বাড়িতে থাকত।

মেয়ের পরিবারের লোকজন সেই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় কিছুদিন আগে হাসান ক্ষিপ্ত হয়ে মেয়ের পরিবারের সদস্যদের হুমকিও দিয়েছিল। সেই থেকে মেয়েটিকে একই ইউনিয়নের গোদার পাড়াস্থ দাদার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয় তারা।

এ ঘটনাটি তারই জের ধরে ঘটতে পারে বলে এলাকাবাসি ও পুলিশের ধারণা। এ ঘটনার পরই থেকে মোনাফ মিস্ত্রীসহ পরিবারের সবাই ঘরে তালা লাগিয়ে দিয়ে পালিয়ে যায়।

চকরিয়া থানার ওসি মো. হাবিবুর রহমান জানান, এ হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা চলছে। সন্দেহভাজনদের গ্রেফতারে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।

চকরিয়া থানার ওসি মো. হাবিবুর রহমান বলেন, স্বামী ও সন্তানদের অনুপস্থিতিতে নাজমাকে কারা এবং কেন হত্যা করেছে তা তাৎক্ষণিক জানা যায়নি। হত্যার রহস্য উদঘাটনে পুলিশের কয়েকটি টিম কাজ করছে। দ্রুত হত্যাকারীদের সনাক্ত করে আইনের আওতায় আনা হবে।

তিনি আরো বলেন, নিহতের মরদেহ সুরতহাল করা হয়েছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।