রোববার, ২১ জুলাই ২০১৯

ফটিকছড়িতে চাচা ধর্ষণ করল ৯ মাসের ভাতিজিকে

প্রতিনিধি,ফটিকছড়ি, চট্টগ্রাম

প্রকাশিত: ২৭ জুন ২০১৯ বৃহস্পতিবার, ০৯:০২ এএম

ফটিকছড়িতে চাচা ধর্ষণ করল ৯ মাসের ভাতিজিকে

এই বর্বরতা যে আইয়ামে জাহেলিয়াতকেও হার মানাবে। ফটিকছড়িতে চাচার হাতে ধর্ষণের শিকার হয়েছে ভাতিজি। ভাতিজির বয়স মাত্র ৯ মাস, যে এখনও দুগ্ধপোষ্য। মঙ্গলবার (২৫ জুন) দুপুরে উপজেলার পূর্বফরহাদাবাদ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।অভিযুক্ত চাচার নাম মোজাম্মেল হক (২৬)।মোজাম্মেল পেশায় একজন রাজমিস্ত্রী।

শিশু সার্জারি ওয়ার্ডের কর্তব্যরত একজন চিকিৎসক জানিয়েছেন, গুরুতর আহত অবস্থায় গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় শিশুটিকে আনা হয়। আজ (গতকাল) দুপুরে আক্রান্ত স্থানে অস্ত্রপচারও করা হয়েছে। শিশুটির অবস্থা আগের চেয়ে এখন কিছুটা উন্নতির দিকে। তাকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

জানা গেছে, শিশুটির মা চাচার হাতে তাঁর মেয়েকে রাখতে দিয়ে ঘরের কাজ করছিলেন। শিশুর কান্নার আওয়াজ পেয়ে ফিরে এসে রক্তাক্ত অবস্থায় দেখতে পান। এসময় চাচা মোজাম্মেল হক দৌঁড়ে ঘর থেকে পালিয়ে যান। শিশুটি বর্তমানে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৮৪ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আছে।

এ ঘটনায় ফটিকছড়ি থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। বুধবার(২৬ জুন) সন্ধ্যায় মামলাটি করেন ভিকটিমের মামা বাবর।

ঘটনা সম্পর্কে জানতে চাইলে শিশুটির মা বলেন, গোসল করানোর কথা বলে ঘাতক মোজাম্মেল আমার মেয়েকে তার কক্ষে নিয়ে যায়। এসময় আমার পাঁচ বছর বয়সী বোনের মেয়েও তার রুমে ছিলো। কিছুক্ষণ পরে আমার বোনের মেয়েকে ভয় দেখিয়ে রুম থেকে তাড়িয়ে দেয়। এর পরপরই আমি মেয়ের কান্না শুনে তার রুমে দৌঁড়ে যায়। গিয়ে দেখি মেয়ের পা বেয়ে রক্ত ঝরছে। আমি তাকে জিজ্ঞেস করেছি-আমার মেয়েকে কি করেছে সে, কিন্তু আমার কথার কোনো জবাব না দিয়ে পিছনের দরজা দিয়ে সে পালিয়ে যায়। সে আমার নিষ্পাপ মেয়ের সাথে এই ধরণের জঘন্য কাজ করেছে, আমি তার ফাঁসি চাই।

শিশুটির বাবাও এই ধরণের বর্বর ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চেয়েছে। তিনি কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেন, আমার ভাই একজন নরপিশাচ। সেই আমার এই অবুঝ মেয়েকে কিভাবে এই অবস্থা করতে পারলো। তার কোনো ক্ষমা নেই।

ফটিকছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ বাবুল আকতার বলেন, ৯ মাস বয়সী এক শিশু কন্যাকে ধর্ষণের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। শিশুটির মামা মো. বাবর বাদি হয়ে সন্ধ্যায় মামলাটি দায়ের করেছেন।আসামী মোজাম্মেলকে ধরতে আমরা অভিযান চালাচ্ছি।