বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯

পটিয়ায় গাড়ির সিলিন্ডার বিস্ফোরণে দগ্ধ ১৭

প্রতিনিধি, পটিয়া, চট্টগ্রাম

প্রকাশিত: ২৬ জুন ২০১৯ বুধবার, ০৭:৫৫ এএম

পটিয়ায় গাড়ির সিলিন্ডার বিস্ফোরণে দগ্ধ ১৭

পটিয়ায় সড়কে একটি মাইক্রোবাসের গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে আগুন লেগে এর ১৭ আরোহী দগ্ধ হয়েছেন। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে পটিয়ার ডাক বাংলো মোড়ে এই ঘটনা ঘটে বলে পুলিশ ও হাসপাতালে যোগাযোগ করে জানা গেছে। গাড়িটি চট্টগ্রাম বিমানবন্দর থেকে চন্দনাইশের সাতবাড়িয়া যাচ্ছিল।

দগ্ধ ১৭ জনের মধ্যে ১২ জনের শ্বাসনালী আংশিক পুড়ে গেছে। তাদের সবার অবস্থা আশংকাজনক। এর মধ্যে সাড়ে ৩ বছর বয়সী শিশু আদিবের শ্বাসনালী ২৫ শতাংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তার অবস্থা সবচেয়ে খারাপ বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

অগ্নিদগ্ধদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। তার মধ্যে তিনটি শিশু রয়েছে বলে চমেক পুলিশ ফাঁড়ির নায়েক আবদুল হামিদ জানিয়েছেন।

বার্ন ইউনিটের চিকিৎসক ডা. নারায়ণ ধর বলেন, “এদের সবার দেহের ৩০ থেকে ৩৫ শতাংশ বার্নড। তাদের ২৪ ঘণ্টার পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।”

আহতদের মধ্যে কয়েকজনের নাম জানা গেছে। তারা হলেন  আবুল কালাম, আবদুল আলম, মো: জহির, আরিফ, তৌহিদুল ইসলাম, মো: লোকমান মিয়া, ইদ্রিস মিয়া, মো: হেলাল, মো: বেলাল, মো: জাহাঙ্গীর, মো: মামুন, মো: আবির। তাদের বেশিরভাগের বাড়ি চন্দনাইশ বলে জানা গেছে।   
বিদেশ থেকে ফেরা কাউকে নিয়ে কিংবা কাউকে তুলে দিয়ে মাইক্রোবাসটি চন্দনাইশে ফিরছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে সুনির্দিষ্ট করে কিছু জানাতে পারেননি নায়েক হামিদ।

অন্য কোনো গাড়ির ধাক্কায় মাইক্রোবাসের গ্যাস সিলিন্ডারটি বিস্ফোরিত হয়েছিল কি না, তাও জানাতে পারেনি চমেক পুলিশ। আর এ নিয়ে পটিয়া পুলিশের সঙ্গেও রাতে যোগাযোগ করা যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শী বরাত দিয়ে পটিয়া ফায়ার সার্ভিসের কর্তব্যরত অফিসার রুপক কান্তি সরকার জানান, চট্টগ্রাম হতে সাতকানিয়া ধর্মপুর গামী একটি হাইসকে পেছন দিক হতে একটি কাভার্ডবভ্যান ধাক্কা দিলেই সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ঘটনাটি ঘটে এটি। আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে পটিয়া হাসপাতালে পাঠিয়েছি। তাদের সবার অবস্থা কম বেশি দগ্ধ হওয়ায় চিকিৎসকরা চমেক হাসপাতালে পাঠিয়ে দিয়েছেন।