মঙ্গলবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

চট্টগ্রাম আইনজীবী সমিতিতে আওয়ামীলীগ-বিএনপি সমান সমান

প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

প্রকাশিত: ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ সোমবার, ০৮:১৪ এএম

চট্টগ্রাম আইনজীবী সমিতিতে আওয়ামীলীগ-বিএনপি সমান সমান

চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে এবারের ফলাফল আওয়ামীলীগ-বিএনপি সমান সমান। ১৯ পদের মধ্যে সভাপতিসহ ৯ পদে জিতেছেন বিএনপি সমর্থিত আইনজীবী ঐক্য পরিষদের প্রার্থীরা। আর সাধারণ সম্পাদকসহ ৯ পদে জিতেছে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের প্রার্থীরা। বাকি একটিতে জিতেছেন স্বতন্ত্র প্যানেল সমমনা আইনজীবী সংসদের প্রার্থী।  সংগঠনটি প্রায় ১৩ বছর আগে সমন্বয় পরিষদ থেকে বেরিয়ে এসে আলাদা প্যানেলে নির্বাচন করে আসছে।

অন্যদিকে কার্যনির্বাহী সদস্যের ১০টি পদের মধ্যে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্যফ্রন্টের ৫ জন ও সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের ৫ জন নির্বাচিত হয়েছেন।
রোববার সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত একটানা ভোট গ্রহণের পর দিনগত রাত ১টায় আনুষ্ঠানিকভাবে এ ফলাফল ঘোষণা করা হয়। নির্বাচনে ৩ হাজার ৪২৬ জন ভোটারের মধ্যে ২ হাজার ৭৩৩ জন নিজেদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। শান্তিপূর্ণ ও সুশৃংখল এ ভোটে ছিল উৎসবমুখরতা।

নির্বাচনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সমৃদ্ধ আওয়ামীপন্থী সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ, বিএনপি-জামায়াতপন্থী আইনজীবী ঐক্য পরিষদ, স্বতন্ত্র ভাবধারা নিয়ে গঠিত সমমনা আইনজীবী সংসদ ও বাংলাদেশ গণতান্ত্রিক আইনজীবী পরিষদ এ চার প্যানেলে বিভক্ত হয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছেন  প্রার্থীরা।

সভাপতি পদে বিএনপি সমর্থিত আইনজীবী ঐক্য পরিষদের প্রার্থী এডভোকেট বদরুল আনোয়ার ১২শ ৩৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিক সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের প্রার্থী অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোক্তার আহম্মদ পেয়েছেন ৮০২ ভোট। এ পদে স্বতন্ত্র প্যানেল সমমনা আইনজীবী সংসদের প্রার্থী অ্যাডভোকেট চন্দন দাশ পেয়েছেন ৬৭১ ভোট।

সাধারণ সম্পাদক পদে বিজয়ী হয়েছে আওয়ামী লীগ সমর্থিক সমন্বয় পরিষদের এডভোকেট আইয়ুব খান। তিনি পেয়েছেন ১০৮৮ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সমমনা প্যানেলের অ্যাডভোকেট তৌহিদুল ইসলাম চৌধুরী টিপু পেয়েছেন ৮৩৮ ভোট। এ পদে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী অ্যাডভোকেট কাশেম চৌধুরী পেয়েছেন ৬৭৭ ভোট।

সিনিয়র সহ-সভাপতিপদে ঐক্য পরিষদের মো. ইসহাক ১৪৯৫ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন, তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী তুষার কান্তি হাজারী পেয়েছেন ১২০৬ ভোট। সহ-সভাপতি পদে সমন্বয়ের মোহাম্মদ রফিকুল আলম ১৩৪৬ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন, তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঐক্য পরিষদর মো. আজিজুল হক চৌধুরী পেয়েছেন ১৩৩৭ ভোট।

সহ-সাধারণ সম্পাদকপদে সমন্বয়ের মোহাম্মদ রাশেদ ফারুকী ১৩৩৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঐক্য পরিষদের মোহাম্মদ কবির হোসাইন পেয়েছেন ১০১০ ভোট। অর্থ সম্পাদকপদে ঐক্যের রফিকুল আলম ১০৬৭ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন, তাঁর নিকতটম প্রতিদ্বন্দ্বী সমন্বয়ের এসএম অহিদুল্লাহ পেয়েছেন ১০৫৭ ভোট। পাঠাগার সম্পাদকপদে সমমনার ভাস্কর রায় চৌধুরী ১০১৬ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন, তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঐক্য পরিষদের মো. আলী আকবর সানজিক পেয়েছেন ৮৪৯ ভোট। সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সম্পাদকপদে ১৪৬৪ ভোট পেয়ে ঐক্যের জেবুন নাহার লীনা জয়ী হয়েছেন, তাঁর নিকতম প্রতিদ্বন্দ্বী সমন্বয়ের রুবেল পাল পেয়েছেন ১০৮৮ ভোট। তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদকপদে সমন্বয়ের মোহাম্মদ হাসান মুরাদ ১৪৩৩ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন, তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঐক্যের মো. হেলাল উদ্দিন আবু পেয়েছেন ১৪৩৩।