বুধবার, ১৬ জানুয়ারি ২০১৯

পারকি সৈকতে জাহাজ কাটায় দুই কোটি টাকা দন্ড

প্রতিনিধি, আনোয়ারা (চট্টগ্রাম)

প্রকাশিত: ০৭ জানুয়ারি ২০১৯ সোমবার, ১২:২৮ এএম

পারকি সৈকতে জাহাজ কাটায় দুই কোটি টাকা দন্ড

আনোয়ারার পারকি সমুদ্র সৈকতে অনুমতি ছাড়া পরিত্যক্ত জাহাজ কাটার দায়ে ‘ফোর স্টার এন্টারপ্রাইজ’ নামে একটি প্রতিষ্ঠানকে দুই কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ পরিশোধের নির্দেশ দিয়েছে পরিবেশ অধিদফতর।

রোববার জাহাজ কাটার অভিযোগের ওপর শুনানি শেষে এই ক্ষতিপূরণ ধার্য করা হয় বলে জানান পরিবেশ অধিদফতর ।

পরিবেশ অধিদফতর চট্টগ্রাম অঞ্চলের সহকারী পরিচালক মো. বদরুল হুদা জানান, চট্টগ্রামের আনোয়ারায় পারকি সমুদ্র সৈকতে অনুমোদন ছাড়া মেয়াদোত্তীর্ণ জাহাজ ‘এমভি ক্রিস্টাল গোল্ড’ কাটছিল ফোর স্টার এন্টারপ্রাইজ।

অভিযোগ পাওয়ার পর অধিদফরের পক্ষ থেকে শুক্রবার সরেজমিনে জাহাজটি পরিদর্শন করা হয়। এসময় দেখা যায় সরকার ঘোষিত পর্যটন এলাকায় সামুদ্রিক বালিয়াড়ি এবং সৈকতে টিনের ঘেরা দিয়ে জাহাজটি কাটা হচ্ছে। এরপর প্রতিষ্ঠানটির মালিককে শুনানিতে হাজির হবার জন্য নোটিশ দেওয়া হয়।

রোববার শুনানিতে ফোর স্টার এন্টারপ্রাইজের মালিক আবুল কালাম আজাদ হাজির হন। শুনানিতে এক হাজার ৪৯১ শতাংশ সৈকতের ওপর জীব বৈচিত্র্য নষ্ট এবং সামুদ্রিক জীব বৈচিত্র্য ধ্বংস করার অপরাধে দুই কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ ধার্য করা হয়। ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে ক্ষতিপূরণ জমা দেওয়ার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে বলে জানান বদরুল হুদা।

২০১৭ সালের ৩০ মে দুপুরে ঘূর্ণিঝড় ‘মোরা’র প্রভাবে চট্টগ্রাম বন্দরের বহির্নোঙর থেকে এমভি ক্রিস্টাল গোল্ড নামের জাহাজটি আনোয়ারার পারকি সমুদ্র সৈকতে গিয়ে আটকা পড়ে। এর আগে বিভিন্ন মামলায় জড়িয়ে জাহাজটি জব্দ অবস্থায় দীর্ঘদিন ধরে বহির্নোঙরে ছিল। সৈকতের এক পাশের পুরোটা ১৬৮ মিটার বা সাড়ে পাঁচশ ফুটের বেশি লম্বা জাহাজটি দখল করে রেখেছে। জাহাজ ঘিরে চর সৃষ্টি হওয়ায় পারকি সৈকতের পরিবেশ-প্রতিবেশ গত দেড় বছর ধরে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছিল।

এর আগে ফোর স্টার শিপ ব্রেকিংয়ের স্বত্বাধিকারী আবুল কালাম আজাদ বাবুল সাংবাদিকদের বলেন, ১১ কোটি টাকা দিয়ে জাহাজটি উচ্চ আদালত থেকে নিলামে কিনেছেন তারা। তার দাবি, আদালত থেকে জাহাজটির ব্যাপারে পরিবেশ ছাড়পত্র লাগবে না বলেছিল।

তিনি বলেন, আমরা সতর্কতার সাথে জাহাজটিকে আমাদের ইয়ার্ডে আনার চেষ্টা করেছি। কিন্তু জাহাজটির নিচের অংশ বালিতে আটকে যাওয়ায় তা সম্ভব হয়নি। এই অবস্থায় জাহাজটিকে ওখানে কেটে আনা ছাড়া আর কোনো বিকল্প ছিল না।