ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ মে ২০১৮

টিকে গ্রুপের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আবু তৈয়ব আর নেই

পটিয়া প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ শনিবার, ০২:১২ পিএম

টিকে গ্রুপের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আবু তৈয়ব আর নেই

দেশের অন্যতম শিল্প পরিবার টিকে গ্রুপের চেয়ারম্যান বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা এম এ তৈয়ব আর নেই (ইন্না লিল্লাহে... রাজেউন)। শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সকালে ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন। এম এ তৈয়ব দীর্ঘদিন ধরে নানা শারীরিক জটিলতার ভুগছিলেন।

মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৩ বছর। স্ত্রী, তিন ছেলে, ২ মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন তিনি। মরহুমের বড় ছেলে হাসনাত মোহাম্মদ আবু ওবায়দা মার্শাল চট্টগ্রাম চেম্বারের পরিচালক ও মাফ নিউজপ্রিন্ট লিমিটেডের চেয়ারম্যান। অপর দুই ছেলে আবু সাদাত মোহাম্মদ ফয়সাল ম্যাফ নিউজপ্রিন্ট লিমিটেডের পরিচালক, তালহা বিন তৈয়ব মাফ সুজ লিমিটেডের চেয়ারম্যান।

টি কে গ্রুপের সহযোগি প্রতিষ্ঠান ম্যাফ নিউজপ্রিন্টের চিফ ফাইনান্সিয়াল অফিসার এস এম শোয়েব সারাবেলাকে জানান, তাঁর প্রথম নামাজে জানাজা শনিবার বাদ আছর ঢাকার ডিওএইচএস মসজিদ প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হবে। রাত ১০টায় জমিয়তুল ফালাহ মাঠে দ্বিতীয় জানাযা ও রোববার সকাল সাড়ে ৯টায় পটিয়া উপজেলার মনসায় দ্বিতীয় জানাজার পর পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হবে।

এমএ তৈয়ব ছিলেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, সমাজসেবক ও দানবীর। একজন সফল ব্যবসায়ী ও সজ্জন ব্যক্তি হিসেবে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সাথে সম্পৃক্ত থেকে আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে অবদান রেখে গেছেন। তিনি এক নম্বর সেক্টরে অধীনে মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন।

পিতা মীর আহমদ সওদাগরের উৎসাহে দুই ভাই মোহাম্মদ আবু তৈয়ব ও মোহাম্মদ আবুল কালাম মিলে ১৯৭২ সালে ব্যবসা শুর“ করেন। কিছুদিনের মধ্যে ‘তৈয়ব’ ও ‘কালাম’ মিলে প্রতিষ্ঠা করেন টিকে গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ। এডিবল অয়েল অ্যান্ড ফ্যাটস, স্টিল, বোর্ড, পেপার, টেক্সটাইল, প্যাকেজিং অ্যান্ড কইটেইনার, ট্রি প্ল্যানটেশন, শিপ বিল্ডিং, ভোগ্যপণ্য, ট্রেডিং, শেয়ার অ্যান্ড সিকিউরিটিজ ব্যবসা রয়েছে টিকে গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজের। বর্তমানে টিকে গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজের ৬০টি অঙ্গপ্রতিষ্ঠান রয়েছে। এমন কোন ব্যবসার ক্ষেত্র নেই, যেখানে আবু তৈয়ব বিনিয়োগ করেননি।

আবু তৈয়ব ‘গ্লোবাল ট্রেড’ ও ‘ক্যাপিটাল মেশিনারিজ’ বিশেষজ্ঞ হিসেবে বিশ্বে খ্যাতি অর্জন করেন। প্রতি বছরই তিনি কোন না কোন প্রতিষ্ঠান স্থাপন করেছেন। একটি হাসপতাল, বিভিন্ন স্বে”ছাসেবী সংগঠন ও অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেছেন আবু তৈয়ব। তিনি সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডের সাথেও সম্পৃক্ত ছিলেন।

দেশের স্বনামধন্য এ ব্যবসায়ীর মুত্যুতে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, চট্টগ্রাম চেম্বারের সভাপতি মাহবুবুল আলম, চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন চেম্বারের সভাপতি খলিলুর রহমান, এফবিসিসিআই’র সাবেক পরিচালক মো. আমির“ল হক গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। তারা শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

এদিকে শিল্পপতি ও মুক্তিযোদ্ধা এমএ তৈয়বের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমদ ও সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান। নেতৃবৃন্দ মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

বিশিষ্ট শিল্পোদ্যোক্তা আবু তৈয়বের মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন এবি ব্যাংক লিমিটেড , দেওয়ানহাট শাখা। ব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও শাখা ব্যবস্থাপক জসিম উদ্দিন চৌধুরী এক বিবৃতিতে মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন ও শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান।

এছাড়া অঙ্গ প্রতিষ্ঠান ম্যাফ সুজ লিমিটেড এর কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শ্রমিকরা শোক জানিয়েছেন।