ঢাকা, সোমবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৭

পটিয়ায় যুবক খুন, পরকীয়া না অন্যকিছু

রবিউল হোসেন, পটিয়া

প্রকাশিত: ২৪ নভেম্বর ২০১৭ শুক্রবার, ০৮:১৬ পিএম

পটিয়ায় যুবক খুন, পরকীয়া না অন্যকিছু খুনের ঘটনায় আটক আবদুল মান্নান

চট্টগ্রামের পটিয়ায় অজ্ঞাতনামা এক যুবককে (৪২) পিঠিয়ে হত্যা করা হয়েছে। শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭টায় চট্টগ্রাম-কক্সবাজার আরাকান মহাসড়কের পটিয়া পৌরসদরের পটিয়া সরকারি কলেজের পূর্ব গেইট এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় জড়িত আবদুল মান্নান(৪০) নামের একজন স্থানীয় জনতা গণপিটুনি দিয়ে পুলিশের হাতে সোপর্দ করেছে। সে পাশ্ববর্তী চন্দনাইশ উপজেলার হাশিমপুর সৈয়দাবাদ গ্রামের জাফর মিয়ার পুত্র।

বর্তমানে মান্নানকে গুরুত্বর আহত অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এব্যাপারে পটিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে পুলিশ।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সকাল ৭টার সময় অজ্ঞাতনামা এক যুবক পটিয়া পৌরসদরের ডাক বাংলো থেকে পটিয়া সরকারি কলেজ গেইট এলাকার দিকে হেটে যাচ্ছিলেন। ওই যুবক কলেজ গেইটের কাছাকাছি পৌছালে আবদুল মান্নান ওই যুবককে প্রথমে ইট দিয়ে আঘাত করে। এসময় চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজারমুখি একটি সাইক্লিং দল ওই স্থানে পৌছালে তারা আবদুল মান্নানকে থামায়। সাইক্লিং দল যাওয়ার পরে লোহা দিয়ে অজ্ঞাত যুবককে পিঠিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। এক পর্যায়ে অজ্ঞাতযুবক ঘটনাস্থলে মারা গেলে তারপরও আবদুল মান্নান লাশের উপর লোহার রড দিয়ে আঘাত করতে থাকে। স্থানীয় ও কয়েকজন গাড়ি চালক এগিয়ে আসলে আবদুল মান্নানকে রশি দিয়ে গণপিটুনি দেয় এবং পরে পুলিশের হাতে সোপর্দ করে।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে এবং হত্যাকারী আবদুল মান্নানকে পুলিশী হেফাজতে নেয়া হয়। আবদুল মান্নান পরে পুলিশের কাছে দাবি করেন, অজ্ঞাত যুবক মানসিক ভারসাম্যহীন। তার(মান্নান) স্ত্রীর সাথে অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে তুলেছিল ওই যুবক। তাই ওই যুবককে পিঠিয়েছে সে। স্থানীয়রা জানান, অজ্ঞাত যুবককে পিঠিয়ে হত্যাকারী মান্নান দিনমজুরের কাজ করে।

এ ব্যাপারে পটিয়া থানার ওসি রেজাউল করিম মজুমদার জানান, লোহার রড দিয়ে পিঠিয়ে অজ্ঞাত যুবককে হত্যার ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছি। এঘটনায় জড়িত আবদুল মান্নানকে আটক করে পুলিশী হেফাজতে চিকিৎসার জন্য চমেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। নিহত যুবকের পরিচয় পাওয়া যায়নি। প্রাথমিক ভাবে পুলিশ পরকিয়ার কারনে এ হত্যাকান্ডের ঘঠনাটি ঘটেছে বলে নিশ্চিত হয়েছে।