ঢাকা, শনিবার, ২১ অক্টোবর ২০১৭

বাঁশখালী থেকে বান্দরবানের স্বাস্থকর্মী মুন্নির লাশ উদ্ধার

সারাবেলা ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৬ জুলাই ২০১৭ বুধবার, ০৮:৪৫ এএম

বাঁশখালী থেকে বান্দরবানের স্বাস্থকর্মী মুন্নির লাশ উদ্ধার

বান্দরবানে পাহাড়ধসে নিখোঁজ রুমা উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের স্বাস্থ্য সহকারী মুন্নি বড়ুয়ার (২৮) লাশ ঘটনাস্থল থেকে পায় ৮০ কি.মি দূরে বাঁশখালী নদী থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। বাঁশখালী থানার পুলিশ দল অজ্ঞাতনামা হিসেবে মুন্নির লাশ গত সোমবার সন্ধ্যায় নদী থেকে উদ্ধার করে দ্রুত চমকে হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। 

মঙ্গলবার বিকালে ফেসবুকে ছবিসহ স্ট্যাটাস দিয়ে যোগাযোগ করার জন্যে অনুরোধ জানায় বাঁশখালী থানা। পরে ওই লাশ শনাক্ত করেন নিহত মুন্নি বড়ুয়ার ভাই বান্দরবানের সাংবাদিক ছোটন বড়ুয়া এবং তার স্বজনরা। বিষয়টি বান্দরবান থানার পুলিশকেও জানানো হয়েছে। লাশ বান্দরবানে নিয়ে আসার জন্যে মুন্নির স্বজনরা মঙ্গলবার বিকেলেই চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে যাত্রা করেছেন বলে জানিয়েছেন পুলিশ ও লাশের স্বজনরা।

পুলিশ ও স্বজনদের ধারণা- দৌলিয়ান পাড়া এলাকার পাহাড়ি ঝিরির প্রবল স্রোতে মুন্নি বড়ুয়ার লাশটি সাংগু নদীতে ভেসে বাঁশখালী নদীতে গিয়ে পড়ে।

গত রোববার সকালে জেলা সদর থেকে বাসযোগে রুমা উপজেলায় কর্মস্থলে যাবার পথিমধ্যে দৌলিয়ান পাড়া এলাকায় পাহাড়ধসে মর্মান্তিকভাবে নিহত হন মুন্নি বড়ুয়া। একই ঘটনায় এখনও নিখোঁজ রয়েছেন রুমা উপজেলা পোস্ট মাস্টার জবিউল হোসেন, কৃষি ব্যাংক কর্মকর্তা গৌতম নন্দী এবং ছাত্রী চিংমে সিং মারমা। তাদের উদ্ধারে নানাস্থানে উদ্ধারকর্মীরা অভিযান অব্যাহত রেখেছে বলে প্রশাসন সূত্র জানিয়েছে।