ঢাকা, সোমবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৭

বিয়ের কথা গোপন করেন ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’

সারাবেলা ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৩ অক্টোবর ২০১৭ মঙ্গলবার, ০৯:১১ এএম

বিয়ের কথা গোপন করেন ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’

‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ ২০১৭’ প্রতিযোগিতার বিজয়ী ঘোষণা নিয়ে নাটকীয়তা ও গোলমালের পর এবার শুরু হলো নতুন বির্তক। আর তাতে একেবারে ছবিসহ প্রমাণপত্র পাওয়া গেল। মুকুটজয়ী জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল ছিলেন বিবাহিতা।

‘মিস ওয়ার্ল্ড’ প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার প্রথম শর্ত হলো, প্রতিযোগীকে অবশ্যই অবিবাহিত হতে হবে। কিন্তু সে শর্ত অনুযায়ী জান্নাতুল নাঈম ছিলেন অযোগ্য।

এ অবস্থায় ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ নতুন বিজয়ীর নাম ঘোষণা হতে যাচ্ছে বলে শোনা যাচ্ছে। জান্নাতুল নাঈম এভ্রিলকে ‘অযোগ্য’ ঘোষণা দিয়ে নতুন জনের নাম প্রকাশ করতে যাচ্ছে প্রতিযোগিতার যৌথ আয়োজক অন্তর শোবিজ ও অমিকন এন্টারটেইনমেন্ট। এমনটাই নিশ্চিত করেছেন অন্তর শোবিজসংশ্লিষ্ট একাধিক ব্যক্তি।

আর এ উদ্দেশ্যে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজধানীর হোটেল প্যানপ্যাসিফিক সোনারগাঁওয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। যেখানে বিস্তারিত তুলে ধরবেন আয়োজকরা।

এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের আগেই তার বিয়ে হয়। প্রায় আড়াই মাস সংসার করার পর তিনি তার সে সম্পর্কে ইতি ঘটে। বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটান তিনি। এসব তথ্য গোপন রেখেই জান্নাতুল নাঈম ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতায় অংশ নেন। এবং ‘বিতর্কিতভাবে’ বিজয়ী হন।

জান্নাতুল নাঈমের গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার ৫ নম্বর বরমা ইউনিয়নে। সেখানকার সেরন্দি গ্রামের রাউলিবাগ এলাকায় তিনি থাকতেন। তার বাবা তাহের মিয়া ও মা রেজিয়া বেগম।
জানা যায়, ২০১৩ সালের ২১ মার্চ চন্দনাইশ পৌর এলাকার বাসিন্দা ও কাপড় ব্যবসায়ী মোহাম্মদ মুনজুর উদ্দিনের সঙ্গে জান্নাতুলের বিয়ে হয়। বিয়ের উকিল হন মেয়ের বাবা তাহের মিয়া। বিয়েতে কাজি ছিলেন আবু তালেব। বিয়ের দেনমোহর ছিল ৮ লাখ টাকা। একই বছরের ১১ জুন তালাকনামায় সই করেন জান্নাতুল।

বিষয়টি নিয়ে এভ্রিল বলেন, ‘আমার বাগদান হয়েছিল, বিয়ে হয়নি’। বুধবার সংবাদ সম্মেলন করে তিনি এ বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরবেন বলে জানিয়েছেন। 

এদিকে, গত ২৯ সেপ্টেম্বর বসুন্ধরা ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটির নবরাত্রি মিলনায়তনে ঘোষণা করা হয় ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’-এর নাম। এরপর থেকেই আলোচনায় আছে পুরো আয়োজনটি। চূড়ান্ত অনুষ্ঠানে জন্মেছে নানা বির্তক।

প্রথমে সেসময় শীর্ষ ১০ প্রতিযোগীর মধ্যে জান্নাতুল সুমাইয়া হিমিকে বিজয়ী ঘোষণা করার কিছুক্ষণের মধ্যেই আয়োজকরা জানান, তিনি হয়েছেন দ্বিতীয় রানারআপ! পরে জান্নাতুল নাঈম এভ্রিলকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়।

এরপর থেকে শোরগোল আরও বেড়েছে। বেশ কিছু অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে বের হয়ে আসে এভ্রিল ছিলেন আয়োজক প্রতিষ্ঠান অন্তর শোবিজের পছন্দ। বিচারকের নম্বর তোয়াক্কা না করেই এভ্রিলের নাম ঘোষণা করা হয়।

এবার সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে এভ্রিলের বিয়ের ছবি ছড়িয়ে পড়লে পুরোপুরি বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছেন অনেকে। তাই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজনের ঘোষণা দিয়েছে অন্তর শোবিজ ও অমিকন এন্টারটেইনমেন্ট।

অন্যদিকে বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যায়, মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ হিসেবে নাম ঘোষণা হতে যাচ্ছে জেসিয়া ইসলামের। তবে জান্নাতুল সুমাইয়া হিমি প্রথমবার বিজয়ী ঘোষিত হলেও তিনি এ মুকুট পাবেন না।
কারণ অন্তর শোবিজের চেয়ারম্যানের ঘোষিত ফলই চূড়ান্ত হিসেবে ধরা হচ্ছে। সে অনুযায়ী হিমি এবার হবেন প্রথম রানারআপ।