AD
ঢাকা, শুক্রবার, ২৮ জুলাই ২০১৭

ইয়াবা বন্ধে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর জিরো টলারেন্স

আনোয়ারা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ১৫ জুলাই ২০১৭ শনিবার, ০৯:৪৪ পিএম
ইয়াবা বন্ধে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর জিরো টলারেন্স আনোয়ারায় ফায়ার সার্ভিস স্টেশন উদ্বোধনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সামনেই ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ বলেছেন আনোয়ারায় ইয়াবা বন্ধে জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতা কাউকে ছাড় নয়। যেই জড়িত থাকুক না কেন গ্রেপ্তার করুন। আনোয়ারায় ইয়াবা উদ্ধারের খবর দেখলে লজ্বায় আমার মাথা নীঁচু হয়।  যেকোন মূল্যে ইয়াবার মরণছোবল থেকে মুক্তি চাই। গতকাল শনিবার বিকেলে আনোয়ারায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্থানীয় সংসদ সদস্য জাবেদ এভাবেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে ইয়াবার বিরুদ্ধে তাঁর কঠোর অবস্থানের কথা জানান।

জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, , থানায় মাদক ব্যবসায়ীর পক্ষে যাঁরা সুপারিশ করবে তাঁদেরও আটক করুন। সর্বনাশা মাদক দেশ ও যুব সমাজকে ধ্বংস করছে। এখন থেকে ইয়াবা-মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষিত হলো।

আনোয়ারায় ২ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত এই ফায়ার সার্ভিস স্টেশনে জনবল থাকছে ২৭ জন । ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আলী আহম্মদ খানের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল । বিশেষ অতিথি ছিলেন ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ, র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজির আহমেদ, চট্টগ্রাম রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি কুসুম দেওয়ান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. আবদুল জলিল ও সরকারের যুগ্ম সচিব এবং ফায়ার সার্ভিস স্টেশন নির্মাণ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মো. আবদুর রাজ্জাক।

এছাড়া উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা, কোস্ট গার্ডের পূর্ব জোনের ক্যাপ্টেন শহীদুল ইসলাম, চট্টগ্রাম দক্ষিনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এমরান ভূইয়া, আনোয়ারার ইউএনও গৌতম বাড়ৈ আনোয়ারা সার্কেলের এএসপি মফিজ উদ্দিন, আনোয়ারা ওসি দুলাল মাহমুদ ও ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক জসিম উদ্দিন।

রাজনীতিবিদদের মধ্যে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামীলীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ফারুক চৌধুরী, আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ মান্নান চৌধুরী, কর্ণফুলী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হায়দার আলী রনি, জেলা পরিষদ সদস্য রেহানা ফেরদৌস চৌধুরী, আনোয়ারার ভাইস চেয়ারম্যান মৃণাল ধর, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মরিয়ম বেগম, পরৈকোড়া ইউপি চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ চৌধুরী আশরাফ মিয়া, বৈরাগ ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সোলায়মান, চাতরী ইউপি চেয়ারম্যান ইয়াছিন হিরু, বরুমচড়া ইউপি চেয়ারম্যান শাহাদত হোসেন চৌধুরী, বারশত ইউপি চেয়ারম্যান এ এ কাইয়ুম শাহ, আনোয়ারা সদর ইউপি  চেয়ারম্যান অসীম কুমার দেব, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ওসমান গনি রাসেল, উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মো. ছৈয়দ, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আলী আকবর, সাধারণ সম্পাদক জাফর ইকবাল তালুকদার ও আনোয়ারা কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি এম. নজরুল ইসলাম।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তার বক্তৃতায় বলেন দেশে ৭৮ হাজার কারাবন্দীর মধ্যে ১৫/২০ হাজার মাদকের। মাদকের বিস্তার বন্ধে সবার সহযোগিতা দরকার।

তিনি বলেন, জঙ্গীবাদ দমনে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। এ দেশে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি সাধারণ জনগনও জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নেওয়ায় বদলে যাচ্ছে প্রিয় বাংলাদেশ।  মন্ত্রী আরো বলেন, আমাদের ফায়ার সার্ভিস এখন শুধু আগুনই নেভায় না। তাঁরা দেশের প্রয়োজনে সব ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগে মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে ভূমিকা পালন করছে।

ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এমপি বলেন, ইয়াবা একটি সর্বনাশা মাদক। এই ইয়াবা এখন আনোয়ারায় মহামারী আকার ধারণ করেছে। তাই এর লাগাম টেনে ধরা দরকার। যারা এ কাজ করবে তাদের আইনের আওতায় আনা হোক।

র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজির আহমেদ তাঁর বলেন, বাংলাদেশের ফায়ার সার্ভিস সব কাজ করছে। শুধু আগুন নিয়ন্ত্রনই নয় তাঁরা দুর্যোগে জনগনের পাশে দাঁড়াচ্ছে।