AD
ঢাকা, শুক্রবার, ২৮ জুলাই ২০১৭

পটিয়ায় বাস খাদে, আহত ৪০

পটিয়া প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৪ জুলাই ২০১৭ মঙ্গলবার, ১০:২২ পিএম
পটিয়ায় বাস খাদে, আহত ৪০

পটিয়ায় বিআরটিসি পরিবহনের একটি দোতলা বাস নিয়ন্ত্রন হারিয়ে খাদে পড়ে ৪০ যাত্রী আহত হয়েছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টায় চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পটিয়া জঙ্গলখাইন পাইরোল শাহ আমানত ফিলিং ষ্টেশন এলাকায় ঘটনাটি ঘটে।

আহতদেও কয়েকজন হলেন, বিমল সাহা(৬২), মো. মোবারক(৪৫), গিয়াস উদ্দীন (৩০), অনিতা দে(২৯), মো. আলী(৬০), হাসান উদ্দীন(৩০), নাসির উদ্দীন(৭২),  মালেক (৪০), বিনায়ক মজুমদার(৩০), শেফালি দাশ(৪২), মো. শওকত(৫০), সজীব ধর(৩০), শহীদ (৩০), রিদোয়ান (৩০), দাউদ (৬৭), গুরা মিয়া (২২), সাজেদা বেগম (১৭), রফিক (৩২), বশর (২৮)। গুরুতর দুজনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে বলে হাইওয়ে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে। আহত অন্যান্য স্থানীয় ভাবে চিকিৎসা নেয়ায় তাদের নাম পাওয়া যায়নি। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বাসটি উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।

জানা গেছে, চট্টগ্রাম থেকে পটিয়ার আসার পথে বিআরটিসি দোতলা (ঢাকা মেট্রো-ব-১১-৬২২০) বাস মহাসড়কের পটিয়া জঙ্গলখাইন পাইরোল শাহ আমানত ফিলিং ষ্টেশন এলাকায় এলাকায় পৌছালে নিয়ন্ত্রন হারিয়ে খাদে পড়ে যায়। এসময় বাসে থাকা সকল যাত্রী আহত হয়। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় হাইওয়ে পুলিশ ও পটিয়া ফায়ার সার্ভিসের টিম আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করে।

পটিয়া ক্রসিং হাইওয়ে পুলিশ ফাঁডির সার্জেন্ট সোহেল সরকার জানান, বিআরটিসি পরিবহনের দোতলা বাসটি কর্ণফুলী ব্রীজ এলাকা থেকে যাত্রী নিয়ে পটিয়ার দিকে যাচ্ছিল। শাহ আমানত ফিলিং ষ্টেশন এলাকায় পৌছালে বাসটি উল্টে গিয়ে পাশ্ববর্তী খাদে পরে যায়। এতে প্রায় ৪০ জন যাত্রী আহত হয়েছে। গুরুতর আহত যাত্রীদের চমেক হাসপাতাল ও পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

স্থানীয় বাসিন্দা শওকত হোসেন জনি জানায়, মহাসড়ক উচু নিচু ও ঝুঁকিপূর্ণ বাঁক হওয়ার কারনে এরকম দূর্ঘটনায় প্রায় সময় ঘটছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ মহাসড়কের দু পাশ উচু নিচু ও ঝুঁকিপূর্ণ বাঁকগুলো সমান করলো দূর্ঘটনা কমে যেত।   

পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ডা. সুজন কুমার ধর বলেন, বাস উল্টে আহত রোগীদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। গুরুতর আহত কয়েকজনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। অনেকে সেবা নিয়ে চলে গেছে।